দমদমে ফ্ল্যাটে অবৈধভাবে শিশু রাখায় অভিযুক্তদের ছেড়ে দেওয়ায় ক্ষুব্ধ বাসিন্দারা

দমদম নাগেরবাজারে এক দম্পতির( শিবানী ব্যানার্জী ও চন্দন) কাছ থেকে ২টি সদ্যজাত ( অানুমানিক বয়স ২ ও ৫ মাসের) শিশু উদ্ধারের ঘটনায় পুলিসের বিরুদ্ধে অভিযুক্ত ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল। ঘটনার সূত্রপাত গত ২৪ মে মার্চ। ওই দিন নাগেরবাজারের একটি অাবাসনের বাসিন্দারা ওই দম্পত্তি হঠাত্ করে দুটি শিশু অানায় সন্দেহ হওয়া জানতেন চান। এর অাগেও এরকমভাবেই একটি শিশুকে এনেছিলেন ওই দম্পতি। নিজের শিশু বলে দাবি করলেও অবহেলার শিকার হয়ে অসুস্থ হয়ে পরে মারা যায় শিশুটি। ফলে ওই দম্পতির অাচরণে সন্দেহ ছিলই অাবাসিকদের। তাই ওইদিন তারা থানায় বিষয়টি জানান। রাতে পুলিসও। পুলিসও দম্পতির বক্তব্যে সন্দেহ প্রকাশ করে। পরের দিন থানায় ডেকে পাঠান হয় দম্পতিকে। দুটি শিশুর জন্মের সার্বাটিফিকেট বা দত্তক নেওয়ার কোন বৈধ কাগজ দেখাতে পারেননি ওই অভিযুক্ত দম্পতি। তা সত্ত্বেও তাদের গ্রেফতার না করে ছেড়ে দেয় পুলিস। পুলিসের তরফে জানান হয় ওই দম্পতিকে ৩দিন সময় দেওয়া হয়েছে বাচ্চাদের সঠিক নথি জমা দেওয়ার জন্য। এখানেই পুলিরে বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন অাবাসনের বাসিন্দারা। তাঁদের অভিযোগ শিশুদের বিষয় উপযুক্ত নথি ওই দম্পতি দেখাতে না পারলেও তাঁদের গ্রেফতার করা হল না কেন? অভিযুক্ত মহিলা নিজে পুলিসে চাকরি করেন বলেই কি পুলিসের এই ছাড়? পুরো বিষয়টিও পুলিসের বিভিন্ন পর্যায় জানানোর পাশাপাশি শিশু অধিকার সুরক্ষা অায়োগের কাছেও জানিয়েছেন অাবাসিকরা।