১১ কোটি টাকা বাজেয়াপ্ত হওয়ার পর তামিলনাড়ুর ভেলোরে ভোটগ্রহণ বাতিল কমিশনের

0
14

ভেলোর লোকসভা কেন্দ্রের ভোটগ্রহেণ হওয়ার কথা ছিল ১৮ এপ্রিল। মাত্র ৩৬ ঘন্টা অাগে ওই কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ বাতিল করল নির্বাচন কমিশন। কারণ এখানেই এক সিমেন্ট কারখানার গুদাম থেকে সাড়ে ১১ কোটি টাকা বাজেয়াপ্ত করা হয়। বিষয়টি সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত গড়িয়েছে। এই প্রেক্ষিত রাষ্ট্রপতির কাছে ওই কেন্দ্রের ভোট বাতিলের সুপারিশ করেছিল নির্বাচন কমিশন। মঙ্গলবার সন্ধের সময় সেই সুপারিশের অনুমোদন পেয়েছে নির্বাচন কমিশন। এক্ষেত্রে অভিযুক্ত বিরোধী ডিএমকে। কারণ ওই গুদাম নাকি ডিএমকের এক নেতার। এই প্রথম নয় । রাজ্যে টাকা ছড়িয়ে ভোট কেনার ঘটনা সামনে অাসতে ২০১৬ সালের বিধানসভা ভোট ২কেন্দ্রের ভোট স্থগিত করে দেওয়া হয়েছিল। ভোটারদের ঘুষ দেওয়ার কারণে দেশে সেই প্রথম কোন কেন্দ্রের ভোট স্থগিত করে দেওয়া হয়েছিল।তামিলনাড়ুতে এখন পর্যন্ত ৫০০ কোটি টাকার সম্পদ বাজেয়াপ্ত হয়েছে যার মধ্যে ২০৫ কোটি টাকা নগদ বাজেয়াপ্ত হয়েছে। বাকিটা সোনা। অার এই অঙ্কটাকে হিমশৈলের চড়ামাত্র বলেই মনে করছেন অনেকে। শুধু তামিলনাড়ু নয় দেশের সর্বত্র টাকা ও ক্ষমতার অপব্যবহারের ভুড়ি ভুড়ি উদাহরণ চোখের সামনে দেখা যাচ্ছে। তাই ভেলোর কোন ব্যতিক্রম নয় বলেই মনে করছেন অনেকে। অার এইসব নিয়েই বছরের পর বছর এদেশে ভোট হচ্ছে। হইচই হলে ভেলোরের মধ্যে ভোট গ্রহণ বাতিল বা স্থগিত করা হচ্ছে। পরে সেই কেন্দ্রে ভোট হচ্ছে , কিন্তু গণতন্ত্র কি পরিণত হচ্ছে তাতে ?