ভোটদানে বাধা, গুলি, সাংবাদিক পেটানোর পরও রাজ্যে ভোট শান্তিপূর্ণ!

দ্বিতীয় দফার ভোটে এরাজ্যের ৩টি লোকসভা কেন্দ্রে ভোট হচ্ছে। দার্জিলিং, রায়গঞ্জ ও জলপাইগুড়ির ভোটে কোথাও শূন্যে গুলি ছুড়তে হলো নিরাপত্তাবাহিনীকে, কোথাও ভোট দিতে না পেরে অবরোধ করলেন স্থানীয়রা, কোথাও বা সাংবাদিককে মেরে মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হল। অাক্রান্ত হলেন খোদ বাম সাংসদ মহম্মদ সেলিমও। এর পরও বাংলা টেলিভিশন মিডিয়ার দাবি বিক্ষিপ্ত ঘটনা ছাড়া ভোট নাকি অবাধ ও শান্তিপূর্ণ। চোপড়ার গুলি চালনা বা গোয়ালপোখড়ে সাংবাদিককে মারধরের ঘটনা কিছুটা জানাজানি হল। এছাড়া বাধাহীনভাবে চাপা সন্ত্রাস চলল কত জায়গায় তার খবর কে রাখে। অথচ এর পরও বলা হবে বিক্ষিপ্ত ঘটনা বাদে ভোট শান্তিপূর্ণ।