এবার নির্বাচিত সাংসদদের ৪৩ শতাংশের বিরুদ্ধেই রয়েছে অপরাধের অভিযোগ

২০১৯ এর লোকসভা নির্বাচনে যাঁরা নির্বাচিত হয়ে সংসদ আলো করে বসবেন,জনপ্রতিনিধি হয়ে যাঁরা আইন রক্ষার শপথবাক্য পাঠ করবেন,সেইসব প্রার্থীদের মধ্যে ৪৩ শতাংশই নানা অপরাধে অভিযুক্ত।এঁদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন কোর্টে ফৌজদারি মামলা চলছে।এডিআর বা এ্যসোসিয়েশন অব ডেমোক্রাটিক রিফর্মস ও বেঙ্গল ইলেকসন ওয়াচের সমীক্ষায় ধরা পরেছে এরকমই পরিসংখ্যান।এই সংস্থা দেশে ও রাজ্যে নির্বাচিত সাংসদদের নানা কর্মকান্ড পর্যালোচনা করে,নির্বাচন কমিশনের কাছে বিভিন্ন প্রার্থী তাঁদের যে বায়োডাটা হাজির করে তা পর্যবেক্ষণ করে রিপোর্ট পেশ করে।সাধারণ মানুষ তাদের নির্বাচিত প্রার্থী সম্পর্কে যাতে সম্যক ধারনা রাখতে পারেন সেই লক্ষ্যেই এই সংস্থা কাজ করে।এই সংস্থা জানাচ্ছে এবার সংসদে যাঁরা নির্বাচিত হয়েছেন,তাদের অনেকের বিরুদ্ধে,আর্থিক দুর্নীতি,খুন এমনকী ধর্ষণের অভিযোগও রয়েছে।সেই অভিযোগে তাঁদের বিরুদ্ধে মামলাও চলছে,যার নিস্পত্তি হয় হয় নি এখনও।এবার নির্বাচিত প্রনিনিধিদের মধ্যে ৪৩ শতাংশের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা চলার তথ্য দেওয়ার পাশাপাশি এই সংস্থা জানাচ্ছে,২০১৪ সালের সাধারণ নির্বাচনে নির্বাচিত প্রতিনিধিদের মধ্যে অপরাধের অভিযোগ ছিল ৩৪ শতাংশের বিরুদ্ধে,অর্থাত্ এবার সেই পরিসংখ্যান ৯ শাতাংশ বেড়ে গেছে।এডিআর আর জানাচ্ছে নানা অপরাধে অভিযুক্ত সাংসদ বিজেপিতেই সব চেয়ে বেশী।সাধারণ মানুষের এই অপরাধের অভিযোগ থাকা প্রার্থীদের নির্বাচিত করার প্রবনতার জন্য, নির্বাচনী পর্যবেক্ষকরা অবশ্য এদেশের ভোট মেকানিজমকেই দায়ী করছেন।