প্রশান্ত কানোজিয়াকে মুক্তির নির্দেশ সু্প্রিম কোর্টের

প্রশান্ত কানোজিয়াকে অবিলম্বে মুক্তি দেওয়ার নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। দেশের সর্বোচ্চ অাদালত জানিয়েছে সাধারণ এধরণের অার্জি তারা শোনেন না, কিন্তু একজন ব্যক্তিকে ১১দিন জেলে থাকতে হবে সেটাও মানা যায় না। শনিবার দুপুরে দিল্লিতে বাড়িতে থেকে উত্তরপ্রদেশের পুলিস গ্রেফতার করল সাংবাদিক প্রশান্ত কানোজিয়াকে। এই গ্রেফতারির বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন প্রশান্তের স্ত্রী জাগিশা অরোরা। সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে প্রশান্তের মুক্তির নির্দেশের অর্থ এই নয় যে অাদালত তাঁর ট্যুইটকে মান্যতা দিচ্ছে।

দ্য ওয়ারের প্রাক্তন এই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনি নাকি উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী অাদিত্যনাথের বিরুদ্ধে সোশ্যাল মিডিয়ায় অাপত্তিকর মন্তব্য করেছিলেন। সম্প্রতি জনৈক মহিলা অাদিত্যানাথকে বিয়ে করতে ইচ্ছে প্রকাশ করেন। মহিলার বক্তব্য একটি টিভি চ্যানেলে সম্প্রচারিত হয়। প্রশান্ত ওই ভিডিও টিপ্পনি সহ( যোগীজি প্রেম কখনও চাপা থাকে না) সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেন। অার এটাই নাকি যোগীর বিরুদ্ধে অাপত্তিজনক মন্তব্য। এর পর প্রশান্ত ও ওই বেসরকারি টিভি চ্যানেলের মালিক ও সম্পাদককে উত্তরপ্রদেশ পুলিস গ্রেফতার করে। অনেকেই বলছেন দিল্লি থেকে প্রশান্তকে গ্রেফতার করা হয়েছিল এবং উনি ওয়ের এর সঙ্গে এক সময় যুক্ত ছিলেন বলেই এতটা হইচই হল।অাঞ্চলিক ভাষার ছোট প্রতিষ্ঠান বা ফ্রিল্যান্স সাংবাদিকদের গ্রেফতার করা হলে সুপ্রিম কোর্ট তো দূরের কথা অামরা অনেকে জানতেই হয়তো পারতাম না।