৬টি বিমানবন্দর অাদানিদের হাতে তুলে দেওয়ায় বেনিয়মের অভিযোগ

৬টি বিমানবন্দরের বেসরকারিকরণে কোন একটি সংস্থাকে ২টির বেশি বিমানবন্দর না দেওয়ার সুপাররিশ করে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রক। টেন্ডারে অংশগ্রহণকারীদের যোগ্যতার মানকে উন্নত করার কথা বলেছিল নীতি অায়োগও। তবে এসবের তোয়াক্কা না করে কেন্দ্রীয় সরকারের যৌথ উদ্যোগের প্যালেন অাদানিদের হাতে তুলে দেয় ৬টি বিমানবন্দরই। এই চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট প্রকাশ করেছে দ্য হিন্দ্যু পত্রিকা। রিপোর্টে বেনিয়োমের নানা কথা বিস্তারিতভাবে উল্লেখ করা হয়েছে।

গ্যাস সরবরাহের পর এবার বিমানমন্দর ক্ষেত্রের নিলামেও জয় গুজরাটের সংস্থা অাদানি গোষ্ঠীর। এই প্রথম বিমান পরিবহণে নেমেই বাজিমাত্ অাদানিদের। নিলামে অংশ নেওয়া অন্য ৯টি সংস্থাকে পরাজিত করে করেছে অাদানি এন্টারপ্রাইজেজ। দেশের ৬ টি বিমানবন্দর রক্ষণাবেক্ষণ, পরিচালনা ও সম্প্রসারণের ক্ষেত্রেও হওয়া নিলামে তারাই সর্বোচ্চ দর হেঁকেছে। তিরুবন্তপূরম, ম্যাঙ্গালোর, জয়পুর, অামেদাবাদ ও লখনউয় বিমানবন্দর এবার অাদানিদের হাতে। তিরুবন্তপূরম বিমানবন্দর বেসরকারিকরণ ঠেকাতে কেরল সরকারের সংস্থা KSIDC নিলামে অংশ নেয়েছিল। নিলামে তারাও পরাস্ত হয়েছে। দেশের গুরুত্বপূর্ণ পরিষেবা ক্ষেত্রে সরকারি সংস্থাগুলিকে পিছনে ফেলে অাদানিদের জয়যাত্রা এগিয়ে চলেছে। এর অাগে সারা দেশে গৃহস্থের রান্নাঘরে ও পেট্রল পাম্প্যে সিএনজি পৌঁছে দেওয়ার দৌড়ে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাকে পিছনে ফেলে ২১টা শহরের বরাত ছিনিয়ে নিয়েছিল অাদানির সংস্থা। এর মধ্যে ১৩টি শহরে একাই গ্যাস সরবরাহ করবে তারা। বাকি ৯টি শহরে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা ইন্ডিয়ান ওয়েলের সঙ্গে যৌথভাবে তারা বরাত পেয়েছিল।  সব থেকে মজার কথা হল রাষ্ট্রায়ত্ত  গ্যাস  উত্পাদনকারী  ও সরবরাহকারী সংস্থা GAIL পেয়েছিল মাত্র ৪টি শহরের বরাত। এবার বিমানবন্দর অাদানিদের হাতে তুলে দেওয়ার ক্ষেত্রে বেনিয়মের সরাসরি অভিযোগ উঠল। গ্যাসের ক্ষেত্রে এখনও অামাদের হয়তো কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে।

,