হোটেলের বিকল্প হতে পারে রেলের রিটায়ারিং রুম

মধ্যবিত্ত বাঙালিদের একটা বড় অংশই বেড়াতে ভালবাসেন। পর্যটক না বলে এদেরকে স্পটর্যটক বলাই ভাল। যতনা নতুনের খোঁজ তার থেকে অনেক বেশি কটা জায়গায় গেলাম তার অার্কষণ। গভীরভাবে জায়গাকে চেনা নয় এক দুরাত কাটিয়ে ফিরে অাসা। কিন্তু এর জন্য টাকা কড়িরও দরকার। সবার এরমক অাথিক সামার্থ্য থাকে না। হোটেলের ভাড়া জিএসটির পর অারো ঊর্ধ্বমুখী। তাই রেলের রিটায়ারিং রুম অনেকের কাছে বিকস্প হতে পারে। সস্তার পুষ্টিকর। যাত্রার দিন থেকে ১২ ঘন্টা থেকে ৪৮ ঘন্টা পর্যন্ত রিটাযারিং অত্যন্ত কম ভাড়ায় রুম ভাড়া দেয় irctc। ট্রেনে জার্নির পর যদি শুধু রাতটুকু কোথায় কাটাবেন ভাবছেন তাহলে রিটায়ারিং রুম অাপনার গন্তব্য হতে পারে। স্টেশন চত্বরেরর মধ্যে এসি নন এসি সব রকমের রুমই পাওয়া যায়। তবে টিকিট কাটার সঙ্গে সঙ্গেই বুকিং করা ভাল। না হলে পাওয়ার সম্ভবনা কম। রেলের বড় ও মাঝারি স্টেশনেই পাওয়া যায় এই রিটায়ারিং রুম। পিএনঅার নম্বর দিয়ে irctc এর ওয়েবসাইটে গিয়ে রিটায়ারিং রুম সেকশনে গিয়েই বুক করতে পারবেন রিটায়ারিং রুম। অবশ্য যদি খালি থাকে অার যতদিন না পুরো রেলটা বেচে দিচ্ছে সরকার।