সিদ্ধার্থের খোঁজে তোলপাড় প্রশাসন, কবে খোঁজ মিলবে নজীবের?

CCDএর কর্ণধার তথা বিজেপি নেতা এসএম কৃষ্ণার জামাই ভিজি সিদ্ধার্থের দেহ মিলল। হঠাত্ করে নিখোঁজ হয়ে যান তিনি। দেশের ক্ষমতার অলিন্দে হইচই পড়ে যায়। খোঁজা শুরু হয়। অবশেষে তাঁর দেহ উদ্ধার হল নদী থেকেই। প্রিয়জনদের কাছে অত্যন্ত দুঃখের খবর। ঠিক সেরকমই দুঃখে দিন কাটছে এক মায়েরও। নজীব অাহমেদের মায়ের। যে দেশের রাজধানী থেকে হঠাতই উবে গিয়েছিল। তাও আবার যে সে প্রতিষ্ঠানের নয়। jnu এর  ছাত্র নজীব আহমেদ ২০১৬ সালের ১৫ অক্টোবর jnu ক্যাম্পাস থেকে হঠাত্ই নিখোঁজ হয়ে যান। এখনও তাঁর হদিশ দিতে পারেনি। প্রায় ৭ মাস পর নজীবের নিখোঁজ  মামলার তদন্তের দায়িত্ব cbiকে দেয় দিল্লি হাইকোর্ট।  jnu এর যেসব ABVP সমর্থকদের বিরুদ্ধে নজীবকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে তারা রয়েছে বহাল তবিয়তেই। নজীবকে খোঁজার বিষয় পুলিস উদ্যোগী না হলেও পরিবারকে হেনস্তা করা থেকে শুরু করে নজীব isis এর ওয়েবসাইট দেখতো বলে মিথ্যে গল্প মিডিয়াকে খাওয়াতে তত্পর ছিল দিল্লি পুলিস। একজন ঋণগ্রস্ত ব্যবসায়ী সিদ্ধার্থের খোঁজে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল কর্নাটক প্রশাসন। পাশে ছিল কেন্দ্র সরকারও। নজীবের মায়ের পাশে কোন সরকারই নেই। অাছে নজীবের কিছু সহপাঠী। কবে খোঁজ মিলবে নজীবের?