৩৭০ ধারার প্রভাবআকাশেও

0
4

সোমবার ৩৭০ ধারা বাতিলের প্রভাব পড়ল আকাশেও,মানে বিমান চলাচলেও।এদিন দিল্লি বামান বন্দর থেকে একাধিক বিমান কাশ্মীরের দিকে যাওয়ার প্রস্তুতি নিতে থাকায়,বিমানের ভিড় জমে যায় দিল্লি বিমান বন্দরে,ফলে নির্দিষ্ট সময়ে অনেক বিমানই দিল্লির বন্দরে নামতে পারেনি।রাস্তার ট্রাফিক জ্যাম সম্পর্কে আমরা সবাই অবগত।যানজটের কারণে কতজনের কতদিন কত জায়াগায় সময়মত পৌঁছোন হয়নি তার পরিসংখ্যান লিখতে বসলে হয়তো শেষই হবে না।যারা ভাবেন অন্তত বিমানে চড়লে এই ঝামেলা থেকে মুক্ত হওয়া যায়,তাদের জেনে রাখা ভাল আকাশেও যানজটের ঝামেলা হয় মাঝে মধ্যে।এই যেমন সোমবারেই সে রকম সমস্যার মুখোমুখি হতে হল বেশ কিছু বিমান যাত্রীকে।নিজেদের সেই অভিজ্ঞতার কথা বলেছেনও কেউ কেউ সোশ্যাল মিডিয়াতে।সোমবার এয়ার ইন্ডিয়ার ০২১ বিমানে দিল্লির উদ্দেশ্যে যাত্রা করেছিলেন একদল যাত্রী।দিল্লিতে পৌছেও বিমান বন্দরে সময়মত নামতে পারল না বিমানটি।আকাশে চক্কর কাটতে থাকল।উদ্বিগ্ন যাত্রীরা কারণ জিজ্ঞাসা করায় বিমান কর্মীদের পক্ষ থেকে জানানো হয় বিমান বন্দরে নামার জন্য অনেক বিমানের ভিড় লেগে গেছে তাই বিমান অবতরণের জায়গা পাওয়া যাচ্ছে না।যাত্রীদের আর জানানো হয়,কাশ্মীরে বিশেষ পরিস্থিতি তৈরি হওয়ায় সেখানে দিল্লি বিমান বন্দর থেকে বেশ কিছু বিমান পাঠানোর প্রস্তুুতি চলছে তাই বিমান নামতে সময় লাগবে।এরই মধ্যে এয়ার ইন্ডিয়ার ০২১ বিমানের চালক যাত্রীদের উদ্বেগ বাড়িয়ে জানান যে তাঁর বিমানের জ্বালানি ফুরিয়ে আসছে, তাঁর পক্ষে আর বেশী সময় আকাশে চক্কর দেওয়া সম্ভব নয়।তাই তিনি সব যাত্রীদের সম্মতি নিয়ে ও তাদের নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে অমৃতসরে বিমান অবতরণ করান।সেখান থেকে জ্বালানি ভরে পরে আবার দিল্লি আসার প্রস্তুুতি শুরু হয়।

যারা রাস্তায় বেড়িয়ে যানজটে ফেসে গিয়ে দীর্ঘ সময় গাড়িতে বসে ঘামতে ঘামতে ভাবেন বিমান যাত্রায় এমন হ্যাপার সম্ভাবনা থাকে না,তারা এটা ভেবে সান্ত্বনা পেতে পারেন যে গাড়িতে আটকে থাকলেও আপনার প্রাণ সংশয়ের কোন সম্ভাবনা নেই,কিন্তু কোনভাবে একবার আকাশ পথে যানজটে ফেঁসে গেলে মহা বিপদ উপস্থিত হতে পারে।সেরকমই এক বিপদের আশঙ্কায় সোমবার শিহরিত হয়ে উঠেছিলেন এয়ার ইন্ডিয়ার ০২১ বিমানের সকল যাত্রী।