জম্মু কাশ্মীরে ২০ জনের বিক্ষোভে সরকারের এত ভয় কেন?

0
4

ইদের অাগে কিছুটা ছাড় দিয়েছিল প্রশাসন। কিন্তু মানুষের বিক্ষোভের পর রবিবার ফের মানুষকে ঘরের মধ্যে থাকতে নির্দ‍েশ দিল প্রশাসন। ৩৭০ ধারা বাতিলের বিরুদ্ধে উপত্যকায় বড় বিক্ষোভ হয়েছে বলে দাবি করেছিলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। শনিবার স্বরাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র দাবি করেছিলেন শ্রীনগর ও বারামুল্লায় কয়েকটি জায়গায় বিক্ষিপ্ত বিক্ষোভ হয়েছে ঠিকই, তবে তা ২০ জনের মত লোক নিয়ে। প্রশ্ন উঠছে যদি সত্যি মাত্র জনা কুড়ি লোক বিক্ষোভ দেখিয়ে থাকে তাহলে কেন ফের কারফু পরিস্থিতি তৈরি হল শ্রীনগরে?

কয়েকদিন অাগে শোপিয়ানের রাস্তায় লোকজনদের সঙ্গে কথা বলতে বলতে বিরিয়ানি খাচ্ছিলেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দাভোল। পশু বিক্রিতাদের সঙ্গে তাঁর অালাপের ভিডিও এখন জাতীয় মিডিয়ায় প্রকাশিত। উপত্যকায় এতটা যদি পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয় তাহলে মানুষকে রাস্তায় নামতে দিতে সরকারের অাপত্তি কোথায়?

গত সোমবার রাষ্ট্রপতি অাদেশের মাধ্যমে ৩৭০ ধারা বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয় মোদি সরকার। পরে জম্মু কাশ্মীরকে রাজ্য থেকে পরিনত করা হয় দুটি পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে। সংসদে বিতর্কে অংশ নিয়ে অারজেডি রাজ্যসভার সাংসদ মনোজ ঝা জানিয়েছিলেন ৩৭০ ধারা খারিজ করে জম্মু কাশ্মীরকে প্যালেস্তাইনে পরিণত করার রাস্তা খুলে দেওয়া হল। সাংসদের এই অাশঙ্কা উড়িয়ে দিচ্ছেন না ওয়াকিবহাল মহলের অনেকে। ৩৭০ ধারা বাতিল ও জম্মু কাশ্মীরকে রাজ্য হিসাবে অস্তিত্বহীন করা কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের পরিনাম সুদূরপ্রসারী বলে তারা মনে করেন। সেনা দিয়ে জনবিক্ষোভের স্থায়ী সমাধান সম্ভব নয় বলেই মত তাদের।