৩৭০ ধারা বাতিলে বাড়বে বিজেপির ভোট, মনে করাচ্ছে নাতসি পার্টির ভোটের সাফল্য

0
18

৩৭০ ধারা বাতিল করায় জম্মু কাশ্মীরের জনগণ অারো দূরে সরে যাবেন, কিন্তু এখন যদি জাতীয় নির্বাচন হয় তাহলে বিজেপি রাজীব গান্ধীর ৪০০ সিটের রেকর্ডকেও ছাড়িয়ে যাবে। মন্তব্য মোদির সমালোচক প্রাক্তন বিজেপি নেতা যশবন্ত সিনহা। প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রীর জানিয়েছেন ৩৭০ ধারা বাতিলের বিষয়টি পুরোপুরি রাজৈনিতক পদক্ষেপ এর সঙ্গে জম্মু কাশ্মীরের কোন সম্পর্ক নেই। সরকারের নোটবন্দির সিদ্ধান্তের সঙ্গে ৩৭০ বাতিলের বিষয়টিকে তুলনা করে বলেন দুটোও রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত। যেভাবে ৩৭০ ধারা বাতিল করা হয়েছে তারও সমালোচনা করেছেন তিনি। জম্মু কাশ্মীরের জনগণকে বাদ দিয়েই এই সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

অন্যদিকে ৩৭০ ধারা বাতিলের বিষযটিকে অনেকেই দেশে ফ্যাসিবাদের পদচারণ হিসাবেই দেখছেন। নাতসি পার্টির ভোটের সাফল্যের খতিয়ানের বিষয়টিও তুলে ধরেছেন তারা। এই নিয়ে নেটদুনিয়া এখন চর্চাও শুরু হয়েছে। সাংবাদিক শুভজিত্ বাগচি সোশ্যাল মিডিযায় নাতসি পার্টির নির্বাচনী সাফল্যের এক খতিয়ান তুলে ধরেছেন। অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ১৯৩৩ সালের মার্চে জার্মানির সংসদে নাতসি পার্টির অাসন ছিল ২৮৮। সেই বছর নভেম্বর তা বেড়ে হয় ৬৬১টির মধ্যে ৬৬১। ১৯৩৬ সালে ৭৪১টি অাসনের মধ্যে ৭৪১টিতে জয়ী হয় নাতসি পার্টি। ১৯৩৮ সালের এপ্রিলে ৮১৩টির মধ্যে ৮১৩টিতেই জয়ী হয় নাতসি পার্টি। বাকিটা ইতিহাস।

সোমবার রাষ্ট্রপতির অাদেশের মাধ্যমে ৩৭০ ধারা বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয় মোদি সরকার। ঐতিহাসিক দিন বলে দাবি করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। দ্বিতীয় স্বাধীনতার দিন বলেও মনে করছেন অনেকে। দেশজুড়ে উগ্র জাতীয়তাবাদের লক্ষণ স্পষ্ট বলে মনে করছেন সমাজবিজ্ঞানীদের একটা অংশ। উদ্বিগ্ন মানবাধিকার কর্মীরাও। জনগণের কন্ঠরোধের অাশঙ্কা করছেন অনেকেই। তারা মনে করছেন ৩৭০ ধারা বাতিল করে সেই লক্ষে অারেক ধাপ এগোল বিজেপি।