PNB ও বরোদা ব্যাঙ্ককে কেন ৫০ লক্ষ টাকা জরিমানা

রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা pnb এর বোধহয় দুর্দিন শেষ হবে না। শনিবার ব্যাঙ্কের তরফে জানান হয়েছে কিংফিশারের ঋণ প্রতারণার বিষযটি সঠিক সময় না জানানোর জন্য পিএনবিকে ৫০ লক্ষ টাকা জরিমানা করেছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। পৃথক একটি প্রতারণার ঘটনায় দেরিতে জানানোর জন্য ব্যাঙ্ক অফ বরোদাকেও ৫০ লক্ষ টাকা জরিমানা করেছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। কিন্তু যেটা স্পষ্ট নয় তা হল প্রতারণার বিষয়টি রিজার্ভ ব্যাঙ্কে দেরিতে জানানোর পিছনে কি নিছকই ব্যাঙ্কের গাফিললতি কাছ করেছে নাকি নির্দিষ্ট ব্যবসায়ী বা শিল্পপতিকে সুবিধা পাইয়ে দেওয়ার জন্য তা করা হয়েছে। দ্বিতীয়টা যদি হয়ে থাকে তাহলে ব্যাঙ্ককে জরিমানা করার থেকেও বেশি জরুরি এর সঙ্গে যুক্ত অাধিকারিকদের শাস্তি প্রদান করা। ভুলে গেলে চলবে না নীরব মোদি মেহুল চোকসির পিএনবি ব্যাঙ্ক প্রতারণার অঙ্কটা সাড়ে ১৩ হাজার কোটি টাকা বলেই হইচই হচ্ছে অন্য অনেকে ব্যাঙ্ক প্রতারণা অামরা জানতেই পারছি না।

শাসক দলের প্রশ্রয় ও ব্যাঙ্কের অাধিকারিকদের একটা অংশ যুক্ত না থাকলে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের প্রতারণা বছরে পর বছর ধরে চলতে পারে না । হোম লোনের একটা কিস্তি ECS এর ত্রুটির কারণে সময় মত জমা না পড়লে ব্যাঙ্কের তরফে চিঠি চলে যায় গ্রাহকের বাড়িতে। তাহলে কী করে এই সব ফড়ে কারবারিরা বছরের পর বছর ধরে ব্যাঙ্ক লুট করে চলে। রিজার্ভ ব্যাঙ্কও তার দায় এড়াতে পারে না। কারণ সব জেনে শুনে বছরের পর বছর তারও নীরব দর্শক হয়ে রয়েছে। অার এইসবকে অজুহাত করে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলিকে প্রথমে কনসোলিডেশন ও ধাপে ধাপে বেসরকারি করণের পথে হাঁটতে চাইছে সরকার। অার তাই বড় বড় ঋণখেলাপিদের তালিকা প্রকাশ করছে না সরকার। মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী রিজার্ভ ব্যাঙ্কের প্রাক্তন গভরনর রঘুরাম রাজন নাকি অনেকদিন অাগেই ঋণখেলাপিদের তালিকা সরকারের কাছে পাঠিয়ে দিয়েছে। অনেকেই ভাবেন ব্যাঙ্ক বেসরকারি করণ হলে ব্যাঙ্কের কর্মদক্ষতা ও দুর্নীতি বাড়বে। সত্যি যদি তাই হতো তাহলে বেসরকারি ব্যাঙ্কেও মানুষকে হয়রান হতে হত না। তাছাড়া ICICI ব্যাঙ্কের এমডি ছন্দা কোচারকে দুর্নীতির কারণেই ব্যাঙ্কের পদ ছাড়তে হয়েছিল। ২০০৮ সালের অামেরিকায় সাব প্রাইম ক্রাইসিসে জড়িত ছিল দুনিয়ার বড় বড় বেসরকারি বিমা ও ব্যাঙ্কিং সংস্থাগুলি।এখনই বেসরকারি ব্যাঙ্কের পথে হেঁটে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলি নানা পরিষেবার উপর চার্জ বসাচ্ছে। যখন পুরো সেক্টরটাই বেসরকারি হাতে চলে যাবে তখন অাম অাদমির টাকার না থাকবে নিরাপত্তা না তারা চট করে ব্যাঙ্কে অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবে।

,