কর্নাটকের পদত্যাগী ias অফিসার দেশদ্রোহী- বিষোদগার বিজেপি নেতা অন্ততকুমার হেগড়ের

0
29

প্রাক্তন কেন্দ্রীয়মন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা অন্তত কুমার হেগড়ে অাবার বিষ উগড়ে দিয়েছেন। এবার তাঁর রাগ ইস্তফা দেওয়া কর্ণাটকের অাইএএস অফিসার শশীকান্ত সেন্থিলের বিরুদ্ধে। তাঁর ইস্তফাকে দেশদ্রোহ বলে মনে করেন বিজেপির এই নেতা। শুধু তাই নয় শশীকান্তকে পাকিস্তানে চলে যাওয়ার ফতোয়া জারি করেছেন বিজেপির এই নেতা। অন্ততকুমারের হেগড়ের এহেন বক্তব্যে বোধ হয় গর্ববোধ করছেন দলের বড় নেতারা। কারণ এখনও পর্যন্ত একে নিন্দা করে কোন বিবৃতি লক্ষ করা যায়নি।

কয়েকদিন অাগেই থেকে ইস্তফা দেন  অাইএএস অফিসার দক্ষিণ কর্ণাটক জেলার ডেপুটি কমিশনার শশীকান্ত সেন্থিল। ভারতীয় গণতন্ত্রের মূল বিষয়গুলিকে নজিরবিহীনভাবে অাঘাতপ্রাপ্ত করা হচ্ছে সেই সময় সরকারি পদে তাঁর থাকা অনৈতিক বলে মনে করেন শশীকান্ত।  অাগামী দিনে  দেশের মূল কাঠামো অারো চ্যালেঞ্জের মুখে পড়বে। সেই সময় অাইএস এর বাইরে থকেে সকলের জন্য কাজ করতে চান তিনি। এক বিবৃতিতে এমনটাই জানিয়েছেন শশীকান্ত । ২০০৯ সালে তামিলনাড় থেকে ইউপিএসসিতে টপ করেছিলেন শশীকান্ত। সর্বভারতীয় স্তরে তিনি নবম স্থান অধিকার করেছিলেন।

এর কয়েক দিন নিজের মত ব্যক্ত করার স্বাধীনতা ফিরে পেতে চাকরি থেকে ইস্তফা দেন ২০১২ ব্যাচের IAS অফিসার কান্নান গোপীনাথন।  দাদর নগর হাভেলি প্রশাসনের দায়িত্বপূর্ণ পদে থাকার পর গত ২১ অগস্ট তিনি তার ইস্তফাপত্র দেন। মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী জম্মু কাশ্মীরে বর্তমান পরিস্থিতিতে গণতান্ত্রিক পরিসরকে যেভাবে দমিয়ে রাখা হয়েছে তাতে ব্যথিত এই তরুণ অাইএএস অফিসার।একটি রাজ্যের নাগরিকদের গণতান্ত্রিক অধিকার যেভাবে কেড়ে নেওয়া হয়েছে এবং তাতে দেশের অন্যপ্রান্তের লোকেদের নিষ্প্রিয়তা তাঁকে যন্ত্রণা দিয়েছে। কানন্ন মিডিয়া সাক্ষাত্কারে জানিয়েছেন একসময় ভাবতেন ব্যবস্থার অংশীদার হয়েই ব্যবস্থাকে বদল করতে হবে। অাজ অার সে অাশা তিনি করেন না। ২০১৮সালের কেরল বন্যায় ত্রাণে নিজে শারীরিকভাবে যেভাবে অংশ গ্রহণ করেছিলেন তা সকলকেই চমকে দিয়েছিল। নিজের পরিচয় প্রকাশ না করে বস্তা কাধে করে বয়েছিলেন তিনি। পরে জানাজানি হয়ে যায় তাঁর অাসল পরিচয়। গণতান্ত্রিক পরিসর না থাকা ও জম্মু কাশ্মীর ইস্যুতে নাড়া দেওয়ায় অাগে অাইএএসের চাকরি থেকে ইস্তফা দেন শাহ ফয়সাল। তারপর কান্নন গোপীনাথন। শশীকান্ত সেন্থিল।  সর্বশেষ কোশিস মিত্তল। সবাই  দেশদ্রোহই!