শেহলা রশিদকে ৫ নভেম্বর পর্যন্ত গ্রেফতার না করার নির্দেশ অাদালতের

0
30

৫ নভেম্বর পর্যন্ত জম্মু কাশ্মীর  পিপলস মুভমেন্টের নেত্রী শাহেলা রশিদকে গ্রেফতার করা যাবে না। সোমবার এমনটা জানিয়েছে দিল্লির এক অাদালত। ওই দিন মামলার পরবর্তী শুনানির দিন।   নিরাপত্তারক্ষীদের বিরুদ্ধে মানবাধিকার লংঘনের গুরুতর অভিযোগ করায় শহেলা রশিদের বিরুদ্ধে  দেশদ্রোহিতার অভিযোগে মামল দায়ের করে দিল্লি পুলিস। ইন্ডিয়া টুডের রিপোর্ট অনুযাযী দিল্লি পুলিসের বিশেষ সেল শহেলে রশিদের বিরুদ্ধে  ১২৪(ক) দেশদ্রোহিতা সহ একাধিকক ধারায় এফঅাইঅার দাযের করেছে।  কয়েকদিন অাগে জেএনইউ এর  নকশালপন্থী ছাত্র সংগঠনের প্রাক্তন নেত্রী টুইট করে জানিয়েছিলেন বাড়ি বাড়ি গিয়ে অত্যাচর করছে সেনা বাহিনীর জওয়ানরা। রাতে বাড়িতে হানা দিয়ে যুবকদের গ্রেফতার করা হচ্ছে, বাড়িতে থাকা খাদ্য সামগ্রি মাটিতে ফেলে তেলের সঙ্গে মাখিয়ে দিয়ে নষ্ট করা হচ্ছে। শোপিয়ানে ৪জনকে সেনা ছাউনিতে ডেকে নিয়ে গিয়ে মুখের সামনে মাইক ধরে অত্যাচার করা হয়েছে। যাতে করে অার্তনাদ শুনে এলাকার লোক ভয় পায়। অন্তত এমনটাই অভিযোগ করেছেন শেহলা। শেহলার এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে ভারতীয় সেনা বাহিনী। তাদের তরফে পাল্টা অভিযোগ করা হয়েছে যে শেহেলা ভুয়ো খবর ছড়াচ্ছেন। অন্যদিকে  শেহেলার টুইটে ভারতীয় সেনাবাহিনীর সম্মাণহানি হওয়ার পাল্টা অভিযোগ এনে দিল্লি পুলিসের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন সুপ্রিম কোর্টের  অাইনজীবী অলোক শ্রীবাস্তব।

গত৫  অগস্ট জম্ম কাশ্মীরকে বিশেষ মর্যদা প্রদানকারী ৩৭০ ধারা বাতিল করে ভারত সরকার। তার অাগের দিন থেকেই কার্যত সেনা ছাউনিতে পরিণত করা হয়েছে জম্মু কাশ্মীরকে। বিজেপির নেতা বাদে সব বিরোধীদলের নেতাদের হয় গৃহবন্দি নয়তো জেলে রাখা হয়েছে। অন্তত ৪০০০ মানুষকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জেলে রাখারা জায়াগা হচ্ছে না বলে প্রশাসন হোটলে অস্থায়ী ডিটেনশন সেন্টার  খুলেছে। ৩৭০ ধারা বাতিলের ১ মাস পরও জম্মু কাশ্মীর যোগাযোগ ও মিডিয়ার কাজ কর্ম প্রায় বন্ধ বললেই চলে। সুপ্রিম কোর্ট অবশ্য সরকারকে অারো সময় দেওয়ার পক্ষে। প্রশ্ন উঠছে একটা রাজ্যের মানুষকে বন্দি করে কি দেশ নিজেকে গণতান্ত্রিক বলে দাবি করতে পারে।

ছবি অখিল কুমারের সৌজন্যে, দ্য ওয়ার থেকে নেওয়া