১০ বছর বিনা অপরাধে জেল, মুক্তির পরও রাজা ও প্রসূনদের বিশ্বাস টলেনি এতটুকু

0
63

তাঁদের জীবনের মূল্যবান ১০টা বছর কেড়ে নিয়েছে ব্যবস্থাপনা।দশ বছর জেল খাটার পর আদালত জানিয়েছে তাঁরা নির্দোষ,মাওবাদী সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত হয়ে কোন সন্ত্রাস করার অভিযোগ তাঁদের বিরুদ্ধে প্রমাণ করতে পারেনি পুলিশ প্রশাসন।বিনা দোষে ১০ বছর জেল খাটার পরেও এঁরা,রাজা সরখেল ও প্রসূন চট্টোপাধ্যায় জানিয়ে দিলেন বিচার বিভাগকে গণতান্ত্রীক রীতি মেনে কাজ করতে হবে,তা না হলে এই বিভাগের উপর মানুষ আস্থা রাখতে পারবে না।মানুষের জন্য মানুষের স্বার্থেই তাঁরা লড়াই করেছিলেন বলে দাবি করে রাজা সরখেল বলেন,’দশ বছর আগে যেখানে ছিলাম আজও সেই ভাবনাতেই স্থিত আছি,কোন ভুল করিনি,মানুষের জন্য,মানুষকে ভালবেসেই তাঁদের আন্দোলনকে সমর্থন করেছিলাম।এখনও তাই করবো।’নন্দীগ্রামের লড়াই তারাই লড়েছেন বলে মনে করেন রাজা সরখেল।বিচারবিভাগ তাদের প্রতি অন্যায় করেছে,আর কারও প্রতি যেন এই অন্যায় না করে দাবি তুললেন দশ বছর বিনা অপরাধে জেল থাটা রাজা সরখেল।জেলের মধ্যে সাধারণ কয়েদিদের গণতান্ত্রীক অধিকার রক্ষায় নানা আন্দোলন করতে হয়েছে বলে জানিয়ে প্রসূন চট্টোপাধ্যায় বলেন,যা বলা হয় তা প্রয়োগ করে না বিচারবিভাগ।কয়েদীদের যাযা প্রাপ্য তার প্রায় কিছুই দেওয়া হয় না জেলের ভেতর।অষুধ থেকে খাবার কোনকিছুই দেওয়া হয় না জেলবন্দিদের,তার বিরুদ্ধেও আন্দোলন করে কয়েদীদের নানা প্রাপ্য আদায় করিয়েছেন বলে জানান প্রসূন।

রাজা সরখেল ও প্রসূন তাঁদের জেলবন্দি সময়কার অভিজ্ঞতার কথা শোনান সম্প্রতি এপিডিআরের উদ্যোগে হওয়া এক গণকনভেনশনে।সেখানেই রাজা সরখেল অভিযোগ করেন সরকার তাদের কাছে বার বার এই আর্জি নিয়ে এসেছিল যে তাঁরা যদি সরকারের সহযোগি হয়ে কাজ করেন তবে তাঁদের দ্রুত রেহাই দেওয়া হবে। রাজাবাবু পরিষ্কার জানিয়ে দেন প্রতিবাদ ও মানুষের পাশে থাকার লড়াই থেকে সরে না আসার অঙ্গিকারই তাদের জীবন থেকে এক ধাক্কায় এতগুলো বছর হারিয়ে গেছে।তা নিয়ে কোন আক্ষেপ না করে জীবনকে নতুন করে লড়াইযের মধ্যে নিয়ে যেতে চান রাজা সরখেল।একসময়কার অনেক সঙ্গী সাথি শাসকের সঙ্গে ভিড়ে গেছেন দেখে দুঃখ পেলেও হতাশ হন না রাজা প্রসূনরা,তাঁরা মনে করেন চলার পথে এমনটা হতেই পারে।সবাই সারাজীবন লড়াইয়ের ময়দানে থাকতে পারেন না,অধঃপতন হয় কারোর করোর তবু কেউ কেউ আদর্শ ও নৈতিকতার পথে চিরকাল থেকেছেন,সেই অনুপ্রেরণা নিয়েই সামনের দিকে এগিয়ে যেতে চান বলে জানালেন রাজা সরখেল ও প্রসূন

একসময়কার সঙ্গী ও দীর্ঘদিন জেলবন্দি ছত্রধর মাহাতোকে এখন আর বন্ধু ভাবেন না বলে জানালেন রাজা সরখেল,তাঁর মতে সরকারি আনুগত্য পেতে যিনি আপস করেন তাকে  ঘৃণা করতে হয়,তার রাজনীতি তাকে তাই শিখিযেছে বলে মনে করেন রাজা সরখেল।১০ বছর তাদের  জীবনে কেন বড় পরিবর্তন আসে নি,জেলের ভেতরে যে লড়াই তারা করেছেন,জেল থেকে বেরিয়ে সর্বসাধারণের জন্য সেই লড়াইটাই তারা জারি রাখবেন বলে জানালেন রাজা সরখেল ও প্রসূন চট্টোপাধ্যায়।