৪ বছর পর হাওড়া- দিল্লি রুটে ট্রেন চালাবে বেসরকারি সংস্থা

0
46

ঝুলি থেকে বেড়াল অাগেই বেরিয়েছিল। বেড়াল যখন বেরিয়ে পড়েছে সে মাছ খাবে না কাশি যাবে তাই কি হয়। এবার দিল্লি- হাওড়া ও দিল্লি- মুম্বই রুটে বেসরকারি সংস্থাকে দিয়ে ট্রেন চালানো হবে । সোমবার এমনটাই জানিয়েছেন রেল বোর্ডের সদস্য ভিকে যাদব।  ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেসের রিপোর্ট অনুযায়ী ওই দুই রুটে মালগাড়ির জন্য পৃথক রেললাইন পাতার কাজ শেষ হবে অাগামী ৪ বছরের মধ্যে। ওই ২ রুটের অারো উন্নত করা হবে।  তারপরই বেসরকারি সংস্থাকে দিয়ে  এই দুই রুটে ১৬০ ঘন্টার সেমি হাইস্পিড ট্রেন টালানো হবে বলে জানিয়েছেন  ভিকে যাদব। ইতিমধ্যেই একাধিক সংস্থা ওই দুই রুটে ট্রেন চালাতে অাগ্রহ প্রকাশ করেছে।    শুধু দেশীয় নয় বিদেশি সংস্থাও যাতে এর সুযোগ পায় চার জন্য অান্তর্জাতিক স্তরে টেন্ডার ডাকা হবে বলে জানিয়েছেন রেল বোর্ডের  এই সদস্য।

এর অাগে লখনউ -নয়া দিল্লি রুটের তেজাস এক্সপ্রেসকে IRCTC এর হাতে ছেড়ে দেবে রেল। যদিও IRCTC একটি রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা,অাগামী দিনে তা নাও থাকতে পারে। একটি রিপোর্ট অনুযায়ী ট্রেনের লিজ বাবদ রেলকে প্রতিদিন ১৩ লক্ষ টাকা মত দেবে IRCTC । অার তারা নিজে তুলবে ১৬-১৬ লক্ষ টাকা। অনেকটা বিমানের মত পরিষোব মিলবে এই ট্রেনে। ট্রেনের মধ্যে নানা জিনিস ফেরি করার বিমানের মত কৌশল নেবে IRCTC । এইভাবে শুধু টিকিট নয় অন্য উপায় রাজস্ব অাদায করবে IRCTC । অাগামী দিনে বাড়তি অর্থের বিনিময় বাড়ি থেকে স্টেশনে নিয়ে অাসা ও পৌঁছে দেওয়ার পরিষেবা এই ট্রেনের যাত্রীদের দেওয়ার ভাবনাচিন্তা রয়েছে IRCTC এর।

 ধাপে  ধাপে ভারতীয় রেলকে বেসরকারি হাতে তুলে দেওয়ার দীর্ঘ মেয়াদি পরিকল্পনা নিয়েছে ভারত সরকার।irctc এর শেয়ার ইতিমধ্যেই বিক্রি করে সেই পথেই হাঁটতে শুরু করেছে রেল।অনেকদিন ধরেই পিপিপি র নামে রেলস্টেশনের নানা বিষয় ও গুদাম বেসরকারি হাতে তুলে দেওয়া শুরু হয়ে গেছে। এখন নজর পড়েছে যাত্রী ভাড়ার ভরতুকির উপর। সেটা ধাপে ধাপে কমাতে চাইছে। কারণ তাহলেই যাত্রী ট্রেন চালাতে বেসরকারি সংস্থা উত্সাহ দেখাবে। মোট কথা অাগামী কয়েক বছরের মধ্যেই ভারতীয় রেল  জনপরিষেবা প্রদানকারী সংস্থার বদলে করপোরেট মুনাফার মৃগয়াক্ষেত্রে পরিণত হবে। এখন যেসব মানুষ যারা রেলের বেসরকারি করণের পক্ষে সওয়াল করেন তাখন হাঁড়েহাঁড়ে টের পাবেন মজাটা।