চিদম্বরমের বিরুদ্ধে ১০ লক্ষ টাকার ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ cbi এর চার্জশিটে

0
5

 INX  মিডিয়া মামলায় নিয়মভেঙে বিদেশি বিনিয়োগের অনুমতি প্রদান করায় পি চিদম্বরম, তার পুত্র কার্তি ও বেশ কয়েকজন সরকারি অাধিকারিক সহ মোট ১৫জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট পেশ করল সিবিঅাই। চার্জশিটে ২০০৮ সালে  চিদম্বরমের বিরুদ্ধে ৯লক্ষ ৯৬ হাজার টাকা ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ করা হয়েছে।

টাকা পাচারের তদন্তে   এবার চিদম্বরমকে গ্রেফতার করতে চায় ইডি। বুধবার তাঁকে গ্রেফতার করল ইডি।  এর  অাগে ইডির    হাত থেকে গ্রেফতারি এড়াতে চিদম্বরমের করা অাগাম জামিনের অার্জি খারিজ করে সুপ্রিম কোর্ট। সর্বোচ্চ অাদালত জানিয়েছে অার্থিক অভিযোগের এই পর্যায় অাগাম জামিন মঞ্জুর করলে তদন্তের গতি অাটকে যেতে পারে। ৫ সেপ্টেম্বর থেকে তিহাড় জেলে বন্দি রয়েছেন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী। ২১ অগস্ট সিবিঅাই তাঁকে গ্রেফতার করে। এবার ইডির পালা। তবে চিদম্বরমের তরফে দাবি করা হয়েছে শুধুমাত্র অপমান করার জন্যই তাঁকে গ্রেফতার করা হচ্ছে। ইডি অাদালত চত্বর থেকেই চিদম্বরমকে গ্রেফতার করতে চেয়েছিল। অাদালত বলেছে তিহাড় জেল থেকে তাঁকে গ্রেফতার করতে।

পি চিদম্বরম ২০০৭ সালে ইউপিএ সরকারের অর্থমন্ত্রী থাকাকালীন পিটার মুখার্জি ও ইন্দ্রাণি মুখ্যার্জির চ্যানেল INX মিডিয়াকে নিয়ম ভেঙে ৩০৫ কোটি টাকার বিদেশি বিনিয়োগ তুলতে সাহায্য করেন । সরকারি নিয়ম অনুযাযী সেই সময় তাদের ৪ কোটি টাকার বিদেশি বিনিয়োগ নেওয়ার অনুমোদন থাকলেও তারা সংগ্রহ করেছিল ৩০৫ কোটি টাকা। আর এই বেনিয়মকে আড়াল করতে কার্তি চিদাম্বরম নাকি ঘুষ নিয়েছিলেন ১০ লক্ষ টাকা। তবে ঘুরপথে নাকি সাড়ে ৩ কোটি টাকার একটা অংশও পেয়েছেন কার্তি। ইতিমধ্যে কংগ্রেসের এই লোকসভার সদস্য জেলেও ছিলেন বেশকিছু দিন। এখন জামিনে মুক্ত। ছেলেকে ঘুষ পাইয়ে দিতেই নাকি চিদম্বরম এই বিনয়মে অনুমতি দিয়েছিলেন । অার সেই টাকা নাকি বিদেশেও পাচার করা হয়েছে। বিদেশে নাকি চিদম্বরমের একাধিক সম্পত্তিও রয়েছে।