পুলিশি অত্যাচারের অভিজ্ঞতা বলতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়লেন সন্ময়

0
15

খড়দা থানার পুলিশের নির্যাতনের কথা বলতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়লেন রাজ্য কংগ্রেস মুখপাত্র ও সাংবাদিক সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়।এদিনই পুরুলিয়া থেকে জামিন পেযেছেন তিনি।জামিন পাবার পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে সন্ময়বাবু বলেন,এ রাজ্যে গণতন্ত্রের সমাধি তৈরি করা হয়েছে।গ্রেপ্তারের দিন তাকে মাটিতে ফেলে বেধড়ক মার দেওয়া হয়েছে।ঘুষি,লাথি কিছুই বাদ যায় নি।সন্ময়বাবুর অভিযোগ তাঁর বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ থাকলে মামলা করতে পারতো রাজ্য সরকার,কিন্তু পুলিশ দিয়ে এভাবে রাতের অন্ধকারে তাকে তুলে নিয়ে গিয়ে যে ভাবে অত্যাচার চালানো হল জঙ্গলের রাজত্ব ছাড়া সেটা সম্ভব হত না।পিসি ভাইপো এ রাজ্যে গণতন্ত্র হরণের যে ইতিহাস তৈরি করেছে তার বর্ণণা করতে গিয়ে সাংবাদিকদের সামনেই কান্নায় ভেঙে পড়েন সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়।কাঁদতে কাঁদতে তিনি বলেন এতদিন তিনি থার্ড ডিগ্রির বিষয়টা শুনে এসেছেন প্রত্যক্ষভাবে তা অনুভব করলেন এবার।

কংগ্রেস কর্মী ও আইনজীবী বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য ও অরুণাভ ঘোষের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে সন্ময়বাবু বলেন তাঁরা সহায়তা করেছেন বলেই তিনি আপাতাত বেঁচে গেছেন।তাঁর প্রতি হওয়া অন্যায়ের বিরুদ্ধে তিনি আইনি লড়াই লড়ে যাবেন বলে দাবি করে সন্ময়বাবু বলেন,বিকাশবাবু ও অরুণাভবাবু তাঁর হয়ে লড়বেন বলে জানান সন্ময়বাবু।তিনি এর শেষ দেখে ছাড়বেন বলে দাবি করেন এই কংগ্রেস নেতা।ভয়ঙ্কর এক পুলিশি অত্যাচারের জঙ্গল রাজত্ব চলছে এ রাজ্যে,এখানে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য সবাইকে একসঙ্গে সাধারণ মানুষকে পথে নামতে হবে বলে দাবি করেন সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়।