এয়ারটেল ভোডাফোনকে পাওনা ৪৫ হাজার কোটি মেটাতে ২ বছরের ছাড় কেন?

0
16
সাতদিন ডেস্কঃ   এয়ারটেল ও ভোডাফোন সহ বেশ কয়েকটি টেলিকম সংস্থা থেকে সরকারের পাওনা ৪৫ হাজার কোটি  টাকা মেটাতে অারো ২ বছর সময় দেবে সরকার। মূলত স্পেকট্রাম ও ও লাইসেন্স ফি বাবদ টেলকিম কোম্পানিগুলির থেকে সরকারের এই টাকা পাওনা। গত মাসে সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দেয় সরকারের কাছে  বকেয়া লাইসেন্স ফি বাবদ ৯২ হাজার  ৬৪১ কোটি টাকা টেলকম কোম্পানিগুলিকে মেটিয়ে দিতে হবে।কিন্তু এর মধ্যে অনেক কোম্পানিই ব্যবসা গুটিয়ে নিয়েছে এদেশ থেকে। অনিল অাম্বানির রিলায়েন্স নিজেকে দেউলিয়া ঘোষণা করেছে। ফলে ঠিক কত টাকা এখন সরকার জীবিত কোম্পানিগুলির থেকে পেতে পারে তার কোন স্পষ্ট হিসাব সরকারের তরফে দেওয়া নি তবে অাপাতত ৪৫ হাজার কোটি টাকা পাওনা মেটানোর বিষয়টাতে টেলিকম সংস্থাগুলিকে স্বস্তি দিল কেন্দ্র।
 গত জুলাই মাসে সুপ্রিম কোর্টে হলফনামা পেশ করে সরকার জানায় এয়ারটেল, ভোডাফোন সহ একাধিক মোবাইল পরিষেবা প্রদানকারী কোম্পানিগুলির থেকে ৯২ হাজার কোটি টাকা  পাওনা রয়েছে। এয়ারটেলের কাছে পাওনা ২১ হাজার ৬৮২ কোটি টাকা। ভোডাফোনকে দিতে হবে ১৯৮২৩ কোটি টাকা। দীর্ঘদিন ধরে মামলার জেরে বকেয়া টাকার অঙ্ক বেড়ছে। যুক্ত হয়েছে   জরিমানা ও সুদ । যদিও ১৫টি বেসরকারি সংস্খা যাদের এই অর্থ দিতে হবে তাদের মধ্যে ভোডাফোন ও এয়ারটেল ছাড়া বর্তমানে এদেশে ব্যবসা গুটিয়ে নিয়েছে অনেকেই।
 সুপ্রিম কোর্টের এই রায় টেলিকম শিল্পে যুক্ত কোম্পানিগুলির উপর অাঘাত বলে মনে করছে টেলিকম অপারেটরদের সংস্থা। অাসলে এদেশে সরকারের অাশ্রয় ও প্রশ্রয় কারবার করা এদেশে করপোরেট কালচার হয়ে উঠেছে। কখনও কর ছাড়, কখনও ব্যাঙ্ক ঋণ হজম করে যাওয়াটাই করপোরেট শ্রীবৃদ্ধির রাস্তা।  অাবারো পাওনা মেটাতে ২ বছর ছাড় দিয়ে সরকার সেই ট্রাডিশনই বজায় রাখল বলে ওয়াকিবহাল মহলের মত। jরাষ্ট্রায়ত্ত বিএসএনএল প্রায় উঠে যাওয়ার জোগাড়। তার দিকে নজর পড়ে না সরকারের। এখনও পর্যন্ত ৪জি লাইসেন্স দেওয়া হল না বিএসএনএলকে।  কয়েক হাজার টাকার ঋণের চাপে  পড়ে অাত্মহত্যা করতে বাধ্য হওয়া কৃষকদের। সেই ঋণ মুকুবের টাকা নেই সরকারের কাছে।   বাজেট সামাল দিতে একের পর এক রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার শেয়ার বিক্রি করে টাকা তুলছে  সরকার। অথচ করপোরেটকে ছাড় দিতে কুন্ঠা নেই এই সরকারের।