প্রাক্তন মন্ত্রী ক্ষিতি গোস্বামীর জীবনাবসান

0
26

সাতদিন ডেস্কঃ-চলে গেলেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী ও আরআসপি দলের রাজ্য সম্পাদক ক্ষিতি গোস্বামী।রবিবার সকালে চেন্নাইয়ের এক বেসরকারি হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৬ বছর।দীর্ঘদিন তিনি রাজ্যের পূর্ত দপ্তরের মন্ত্রীত্বের দায়িত্ব সামলেছেন।বেশ কিছুদিন ধরেই ক্ষিতি গোস্বামী বার্ধক্যজনিত নানা অসুস্থতায় ভুগছিলেন।চিকিত্সার কারণেই তিনি চেন্নাইতে গেছিলেন বলে দলীয় সূত্রে খবর।দলীয় সূত্রে আর জানানো হয়েছে রবিবারই ক্ষিতি গোস্বামীর দেহ কলকাতায় আনার ব্যবস্থা হচ্ছে।সোমবার তাঁর দেহ রাখা হবে আরএসপির রাজ্য সদর দপ্তরে।সেখানে তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জানাবে তাঁর পার্টির মানুষজন ও অন্যান্যরা।

মন্ত্রী থাকাকালীন অনেক সময়েই ক্ষিতি গোস্বামী বাম ফ্রন্টের বড় শরিক সিপিএমের মতের বিরুদ্ধে মত দিয়েছেন।সিঙ্গুর ও নন্দীগ্রাম পর্বে তিনি বামফ্রন্টের মধ্যে রীতিমত বিদ্রোহী চরিত্র হয়ে উঠেছিলেন।বাম সরকার যে ভাবে কৃষকের জমি অধিগ্রহণ করে টাটাদের হাতে তুলে দিতে প্রয়াসী হয়েছিল তা বাম মতাদর্শের সঙ্গে মেলে না বলেই ক্ষিতি গোস্বামী মনে করতেন।এ বিষয়ে সংবাদ মাধ্যমের কাছে মুখ খুলতেও দ্বিধা করেন নি ক্ষিতি গোস্বামী।মহাকরণে বাম ফ্রন্ট মন্ত্রী সভার চেয়ারে বসেই ক্ষিতি গোস্বামী একসময় বামফ্রন্টের নানা সিদ্ধান্তের কড়া সমালোচনা করে গেছেন ধারাবাহিকভাবে।সে সময় সাংবাদিকদের কাছে ক্ষিতি গোস্বামী হয়ে উঠেছিলেন ‘খবরের খনি।’অন্যদিকে অনেক বাম নেতাই সে সময় মনে  করতেন ক্ষিতি গোস্বামী বামদের দূর্বল করতে চেষ্টা করছেন।তবু ক্ষিতি গোস্বামী ছিলেন নিজের অবস্থানে অনড়।তিনি মনে করতেন তিনি যা করছেন বা বলছেন তা শেষ পর্যন্ত বাম পন্থার স্বার্থকেই রক্ষা করবে।২০১১ সালে বামেরা ক্ষমতা থেকে সরে যাবার পর যে ভাবে বাম সংগঠনে ধস নামতে শুরু করে তাতে অনেক বাম নেতাই একান্তে স্বীকার করতে বাধ্য হন বামপন্থীদের আদর্শগত বিচ্যুতি নিয়ে ক্ষিতি গোস্বামীর আশঙ্কা ও অভিযোগ একেবারে ভিত্তিহীন ছিল না।

ক্ষমতা থেকে সরে যাবার পরেও সংগঠনের দায়িত্ব নিয়ে রাজ্যের জেলায় জেলায় ঘুরেছেন।নিয়মিত পার্টির সদর দপ্তরে এসে বসতেন।যোগাযোগ রাখতেন সব শ্রেণীর মানুষের সঙ্গে।বলতেন পার্টির সংগঠনের কাজ করতে যে পরিশ্রম করা দরকার শরীর তার সঙ্গে সেভাবে সহযোগিতা করছে না।অসুস্থ হয়ে পড়তেন মাঝে মধ্যেই।বিশ্রাম চাইতেন,রবিবার অন্তহীন বিশ্রামের বার্তাই জানিয়ে দিলেন সবাইকে।ক্ষিতি গোস্বামীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু।তাঁর মতে বাম আন্দোলনে একটা বড় শূণ্যতা তৈরি হল ক্ষিতি গোস্বামীর মৃত্যুতে।শোক জ্ঞাপন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।সোমবার ক্ষিতি গোস্বামীকে শ্রদ্ধা জানাতে রাজ্য সরকারের প্রতিনিধি আরআসপির সদর দপ্তরে আসবেন বলে নবান্ন সূত্রে খবর।ক্ষিতি গোস্বমীর মৃ্ত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্রও।