সমগ্র কাশ্মীর জেলখানায় পরিণত হয়েছেঃ এপিডিঅার এর সভায় জানালেন অনুরাধা ভাসিন

0
111

১০০ দিনের বেশি সময় ধরে জম্মু কাশ্মীরে জনজীবন কার্যত অবরুদ্ধ।  সরকারের হিসাবমত ৪০০০এর মত মানুষকে জম্মু কাশ্মীরে হয় গ্রেফতার নয়তো গৃহবন্দি করা হয়েছে। সংখ্যাটা অন্তত ৪০ হাজার বলে জানালেন কাশ্মীর টাইমসের সম্পাদক অনুরাধা ভাসিন। সমগ্র কাশ্মীরকে জেলখানায় পরিণত করেছে সরকার। বাদ যাচ্ছে না ৯ বছরের শিশুও। কলকাতায় শনিবার  এপিডিঅার এর কাশ্মীর প্রসঙ্গে এক অালোচনা বক্তব্য রাখতে গিয়ে অনুরাধা বলেন মুসলীম সংখ্যাগরিষ্ঠ বলেই রাজ্যকে শেষ করে দিতে চাইছে বিজেপি। তাই অবলুপ্তি ঘটানো হয়েছে জম্মু কাশ্মীর রাজ্যের অস্তিত্বকে। ৩৭০ ধারা বাতিল করার পর থেকে সমগ্রভারতের সঙ্গে কাশ্মীরিদের দূরত্ব বেড়েছে। তারা মনে করছে হিন্দু ভারত মুসলীম কাশ্মীরিদের উপর অত্যাচার করছে। এর বিরুদ্ধে সারা দেশের মানুষকে কাশ্মীরিদের পাশে দাঁড়াতে হবে।

ইন্টারনেট ও মোবাইল পরিষেবা না থাকায়    জম্মু কাশ্মীরে সাংবাদিকদের কাজ করা এতটাই  অসম্ভব হয়ে পড়েছে যে অনুরাধা ভাসিনকে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হতে হয়েছিল। সুরাহা মেলেনি। সারা দিন মাত্র ১৫মিনিট ইন্টারনেট ব্যবহারের জন্য সাংবাদিকদের  সময় দেওয়া হয় সরকারের মিডিয়া সেন্টারে । সরকারের প্রত্যক্ষ নজরদারি মতে চলে সাংবাদিকতা। কাশ্মীর থেকে কাউকে বাইরে যেতেও দেওয়া হচ্ছে না বাইরে থেকে কাউকে কাশ্মীরে ঢুকতেও দেওয়া হচ্ছে না। কাশ্মীরকে সম্পূর্ণভাবে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন অনুরাধা। অালোচনা সভায় অাইঅাইএম এর  প্রাক্তন অধ্যাপক সুশীল খান্না বলেন কাশ্মীরের সঙ্গে একমাত্র প্যালেস্তাইনের তুলনা করা চলে। তবে প্যালেস্তাইনেও ১০০দিন ধরে পুরো জনবসতিকে অবরুদ্ধ করে রাখেনি ইজরায়েল। তিনি বলেন যা কাশ্মীর যা হয়েছে তা অন্য কোন ঢঙে দেশের অন্য রাজ্যেও হতে পারে। তাই নাগরিকদের উচিত অারো বেশি করে  কাশ্মীরে সরকারের কাজকর্মের  প্রতিবাদ করা উচিত।