১৯৬৬ সালে ঠাকুর্দা কোথায় ভোট দিয়েছিল বলতে না পারায় বিদেশি তকমা ট্রাইব্যুনালের অভিযোগ অ্যামেনেস্টি ইন্টারন্যাশনলের

0
237

অসমের ফরেনার্স ট্রাইব্যুনালের কঠোর সমালোচনা করল মানবাধিকার সংগঠন অ্যামেনেস্টি ইন্টারনাশনালের ভারতীয় শাখা। অ্যামেনেস্টির তরফে বুধবার জানান হয়েছে খুশিমত কাজ করে  ফরেনার্স  ট্রাইব্যুনাল, অনেকে সময় দুর্ব্যবহার করে। নোটিস দেওয়ার ১০দিনের মধ্যে সমস্ত নথি নিয়ে শুনানিতে হাজির হতে বলা হয়। যা অাদৌ যুক্তিসঙ্গত বলে মনে করে না অ্যামেনেস্টি।

সুপ্রিম কোর্ট ও গুয়াহাটি হাইকোর্ট  ফরেনার্স ট্রাইব্যুনালকে যেভাবে কাজ করতে দিয়েছে তাতে অসমে রাষ্ট্রহীনতার এক সঙ্কট তৈরি হয়েছে। ফরেনার্স ট্রাইব্যুনালের স্বেচ্ছাচারিতার উদাহরণ হিসাবে অ্যামেনেস্টি জানিয়েছে এক মুসলীম মহিলাকে ট্রাইব্যুনাল বিদেশি হিসাবে চিন্হিত করে শুধুমাত্র এই কারণে যে তিনি মনে করতে পারেননি  তাঁর ঠাকরদা ১৯৬৬ সালে কোন কেন্দ্রে ভোট দিয়েছিলেন। মুসলমান সম্প্রদায়ের এক ব্যক্তি বিদেশি তকমা দেওয়ার কারণ তাঁর ঠাকুরদার নামের বানান ২টি নথিতে ২ রকম লেখা ছিল।

 দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ জানিয়েছেন দেশজুড়ে হবে এনঅারসি। মানবাধিকার সংগঠনের দাবি যদি সত্যি এটা হয় তাহলে সারা বিশ্বে একতরফা ভাবে নাগরিকত্ব কেড়ে নেওয়ার প্রক্রিয়া হবে সেটি। ইতিমধ্যে সারা দেশের সাথে এরাজ্যে মানবাধিকার ও নাগরিক সংগঠনগুলি এনঅারসি, এনপিঅার ও ক্যাব বাতিলের দাবি জানিয়েছে। দেশের নাগরিককে ডিটেনশন ক্যাম্পে পাঠানোর চক্রান্তের বিরুদ্ধে মানুষকে রাস্তা নামার অাবেদন জানিয়েছে তারা। ৯ ডিসেম্বর কলকাতায় রানি রাসমণি রোডে সমাবেশের ডাক দিয়েছে  নাগরিকপঞ্জী বিরোধী যুক্তমঞ্চ। অাগামী ১৯ ডিসেম্বর কলকাতা মহামিছিলের ডাক দিয়েছে  নো এনঅারসি মুভেমেন্ট নামের একটি সংগঠন।

তথ্য সূত্র ঃ দ্য হিন্দু

পড়তে পারেনঃ

নাগরিকত্ব প্রমাণের জন্য কোন নথি সরকারকে জমা না দেওয়ার শপথ মহেশ ভট্টর