Saturday, December 7, 2019
Home এক নজরে NRC নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের প্রাক্তন বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের মন্তব্যের জেরে তাঁর...

NRC নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের প্রাক্তন বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের মন্তব্যের জেরে তাঁর বিরুদ্ধে মামলার দাবি মানবাধিকার কর্মী সুজাত ভদ্রের

0
174

অনুপম কাঞ্জিলালঃ সুপ্রিম কোর্টের প্রাক্তন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ যেভাবে এনআরসি নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন তা মানবাধিকারের চরম বিরোধী।এর জন্য তাঁর বিরুদ্ধে মানবাধিকার আন্দোলনের কর্মীদের উচিত সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের করা।শনিবার মানবাধিকার সংগঠন এপিডিআরের ডাকা এনআরসি বিষয়ক এক আলোচনা সভায় সুজাত ভদ্র এই দাবি তোলেন। এদিনের সভায় সুজাত ভদ্র বলেন, রঞ্জন গগৈ যেদিন তাঁর দায়িত্ব থেকে অবসর নিলেন সেদিন তিনি সংবাদ মাধ্যমের কাছে এনআরসি নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে বলেন যারা এনআরসির বিরোধিতা করছেন তাঁরা আগুন নিয়ে খেলছেন।তাদের সেই খেলা বন্ধ করা উচিত।সেখানেই থেমে না থেকে প্রাক্তন এই বিচারপতি দ্বিধাহীন ভঙ্গিতে বলেন অসামের যে ১৯ লক্ষ মানুষ নাগরিক তালিকা থেকে বাদ পড়ে গেছেন তাঁদের নিয়ে এখন কোন আলোচনাই করা উচিত নয়।মানবাধিকার কর্মী সুজাত ভদ্র এই মন্তব্যকে মানবাধিকার লঙ্ঘনের নিকৃষ্ট উদাহরণ বলে বর্ণনা করে বলেন এই মন্তব্যের জন্য রঞ্জন গগৈয়ের শাস্তি হওয়া উচিত।প্রত্যেকটি মানুষের মানবাধিকার রক্ষা রাষ্ট্রের সংবিধান স্বীকৃত একটি রীতির মধ্যে পড়ে।যেখানে ১৯ লক্ষ মানষের জীবন-যাপন নিয়ে সংশয় তৈরি হচ্ছে সেখানে কোন যুক্তিতে,কোন নৈতিকতায় সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপির পদে কাজ করে যাওয়া এক ব্যক্তি এরকম মন্তব্য করতে পারেন?সুজাত ভদ্র বলেন সামর্থ্য থাকলে তিনি নিজেই ঐ বিচারপতির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতেন।

    এ রাজ্যের মানবাধিকার আন্দোলনের পরিচিত মুখ সুজাত ভদ্র এদিন রঞ্জন গগৈয়ের কড়া সমালোচনা করে বলেন এই লোকটি এ দেশের বিচার বিভাগের প্রতি মানুষের বিশ্বাস ও আস্থাকে নষ্ট করে দিয়ে গেছেন।নিজে আসামে এনআরসির অন্ধ সমর্থক হওয়া সত্ত্বেও এনআরসি মামলায় বিচারক হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছেন।যা চরম অনৈতিক।বিচার বিভাগকে একেবারে দূর্বল করে দিয়ে যাওয়ার অভিযোগও রঞ্জন গগৈয়ের বিরুদ্ধে তোলেন সুজাতবাবু।

   সুজাত ভদ্র তাঁর বক্তব্যে জানান একমাত্র ফ্যাসিস্ট শক্তিই মানুষের অস্তিত্বকে অবৈধ বলে চিহ্নিত করে।এদেশে বিজেপি ও তাদের সহযোগিরাও সে পথে এগুচ্ছে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন সুজাত ভদ্র।এ দেশের নাগরিক পঞ্জীর আইনকে কীভাবে বার বার বদলে বিজেপি তার হিন্দু জিগিরকে সামনে আনতে চাইছে তাঁর বিস্তারিত ব্যাখ্যা উপস্থিত করেন মানবাধিকার আন্দোলনের এই কর্মী।পরিশেষে এনপিআরই যে এনআরসির প্রথম ধাপ সে বিষয়টাও পরিষ্কার করেন সুজাত ভদ্র। সুজাতবাবু বলেন ভারতই একমাত্র দেশ যেখানে একজন নাগরিককে ভোটার কার্ড,আধার কার্ড,রেশন কার্ড,বিপিএল কার্ড,এপিএল কার্ড,পাসপোর্ট,ড্রাইভিং লাইসেন্স এরকম বিবিধ নাগরিক পরিচয়ের তথ্য বহন করার পরেও তার নাগরিকতার প্রমাণ নিয়ে সন্দেহ দুর হয় না রাষ্ট্রের।সুজাত ভদ্র পরিষ্কার বলেন এনআরসি প্রতিরোধে নাগরিককেই পথে নামতে হবে।সরকাররের সব ফরমানকে অগ্রাহ্য করতে না পারলে বিপদ বাড়বে। এদিনের সভায় সুজাত ভদ্র ছাড়াও মানবাধিকার আন্দোলনের অন্যান্য কর্মীরাও বক্তব্য রাখেন।