সরকারের হুমকি উপেক্ষা করে অনশনের ২২দিন পরও অনড় পার্শ্বশিক্ষকরা

0
53

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ সরকার বার বার চাপ দিচ্ছে কাজে যোগ দেবার জন্য।শিক্ষা মন্ত্রী নরমে গরমে বোঝাচ্ছেন এবার কাজে যোগ না দিলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।তবু সরকারের কোন নির্দিষ্ট প্রতিশ্রুতি না পেলে অবস্থান ও অনশন তুলে নিতে রাজি নন পার্শ্বশিক্ষকদের যৌথমঞ্চ।এদিন অনশনের ২২দিন হয়ে যাওয়ার পরও কেন সরকার তাদের বিষয়ে কোন নির্দিষ্ট প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে না তা নিয়ে ক্ষোভ উগড়ে দেন আন্দোলনকারী শিক্ষকরা।পার্শ্বশিক্ষকদের যৌথ মঞ্চের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে অনশনের ২২দিনে তাদের একের পর এক সহকর্মী অসুস্থ হয়ে পড়লেও সরকার সে বিষয়ে কোন উদ্বেগ প্রকাশ না করে বার বার হুমকি ও ভীতি প্রদর্শন করে যাচ্ছে।এই হুমকি বন্ধের দাবি করে অবিলম্বে তাদের আলোচনার টেবিলে বসার আবেদন এদিনও করেন পার্শ্বশিক্ষকেরা।  শনিবারও তিনজন পার্শ্বশিক্ষক অনশন করতে করতে অসুস্থ হয়ে পড়েন,তাঁদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।পার্শ্বশিক্ষক যৌথমঞ্চের আহ্বায়ক ভগীরথ ঘোষও অসুস্থ হয়ে কয়েকদিন হাসপাতালে ছিলেন। হাসপাতালে যেতে হয়েছে যৌথ মঞ্চের যুগ্ম আহ্বায়ক মধুমিতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও।তবু আবস্থান ও অনশন থেকে সরতে রাজি নয় আন্দোলনকারী শিক্ষকরা।তাদের দাবি সরকার তাদের সঙ্গে আলোচনায় বসুক।তাদের প্রস্তাব শুনুক।শিক্ষামন্ত্রী যেভাবে বলছেন তাদের মাইনে সরকার বাড়িয়েছে তা যুক্তি নির্ভর নয় বলে দাবি আন্দোলনরত পার্শ্ব-শিক্ষকদের।
শিক্ষামন্ত্রী পার্শ্বশিক্ষকরা কলকাতায় এসে ঘুরে বেড়াচ্ছেন বলে যে অভিযোগ করেছেন তা নিয়ে তীব্র ক্ষোভ সঞ্চারিত হয়েছে আন্দোলনরত শিক্ষকদের মধ্যে।এদিন আন্দোলনকারি শিক্ষিকা নিতু যশওয়াল বলেন,এতদিন আমরা অবস্থান ও অনশন করছি শিক্ষামন্ত্রী একটু মানবিকতা দিয়ে বিষয়টা ভাববেন না কেন?স্কুল কামাই করে কেউ কলকাতা ঘুরতে আসছে না,আসছে নিজের সম্মান ও হক আদায়ের দাবি নিয়ে।নীতু যশওয়াল মনে করেন শিক্ষামন্ত্রী এ রাজ্যের শিক্ষকদের অভিভাবক তাঁর উচিত আর সংবেদনশীল মন নিয়ে শিক্ষকদের সমস্যা বুঝতে চাওয়া।যৌথমঞ্চের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে তারা এই কদিন দায়িত্ব ভাগ করে আন্দোলন করার পাশাপাশি স্কুলের কাজও করবেন।যেহেতু এবার ডিসেম্বরে শিক্ষাবর্ষ শেষ হচ্ছে তাই আন্দোলনরত শিক্ষকদের একটা অংশ সময় করে স্কুলে গিয়ে খাতা দেখা ও মার্কশীট তৈরির যাবতীয় কাজ সম্পন্ন করে দিয়ে আসবেন।কোনভাবেই তারা ছাত্র-ছাত্রীদের কোন সমস্যার মধ্যে ফেলবেন না।তবে নিদিষ্ট কোন প্রতিশ্রুতি না পেলে তারা যে আন্দোলন এখনই তুলবেন না তাও জানিয়ে দেওয়া হয়েছে পার্শ্বশিক্ষকদের পক্ষ থেকে।