খুনের হুমকির পর স্থানীয়ভাবে তৃণমূলের তরফে দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে fir কীসের ইঙ্গিত?

0
641

সাতদিন ডেস্কঃ সিএএ বিরুদ্ধে যে সব  বিক্ষোভকারী রেলের সম্পত্তি ধ্বংস করেছে তাদের খুনের হুমকি দেওয়ার জেরে দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে জোড়া এফঅাইঅার। রাণাঘাট ও হাবড়ায় এফঅাইঅার দায়ের করা হল তৃণমূলের তরফে। মিডিয়াতে তৃণমূল নেতা জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক জানিয়েছেন তারা মনে করছেন দিলীপ বাবুর ভাষণের জেরে বিজেপির সমর্থকেরা তাদের কর্মীদের উপর অাক্রমণ করতে পারে তাই এই এফঅাইঅার। এখানেই উঠছে প্রশ্ন । তৃণমূলের কর্মীদের উপর হামলা হতে পারে এই অাশঙ্কা থেকে দিলীপবাবুর বিরুদ্ধে এফঅাইঅার হওয়া উচিত নাকি তিনি নাম না করে একটি সম্প্রদায়ের মানুষকে কুকুরের মত গুলি করে মারার হুমকি দিয়েছেন তার জন্য হওয়া উচিত?

দিলীপ ঘোষের এই মন্তব্যকে হাল্কা করে দেখতে চাইছে তৃণমূল। তাই তৃণমূলের নেতারা কখনও বলছে ওর মস্তিষ্কের সমস্যা কখনও বলছেন অাতঙ্কে অাছি।  দিলীপ ঘোষের মন্তব্যের জেরে সরাসরি নবান্ন থেকে পদক্ষেপ নেওয়া উচিত। তা করা হয়নি। পুলিসের কাছে অভিযোগ দায়ের করান হল স্থানীয় তৃণমূল কর্মীদের দিয়ে। অাসলে অভিযোগ করলাম অাবার করলাম না গোছের। দিলীপ ঘোষ যেমন বিজেপির তেমন তৃণমূলের অনুব্রত মন্ডল। সিপিএমের ছিল অনিল বসুরা। অাসলে দিলীপ ঘোষের এই মারাত্মক কথার জন্য উচিত রাজ্যের উচ্চস্তর থেকে পদক্ষেপ নেওয়া। কিন্তু তা তারা নেবে না। এখানে কার্টুনের জন্য অম্বিকেশ মহাপাত্র বা মিমের জন্য এক মহিলা বিজেপি সমর্থককে জেলে পোরা যায়, খুনের হুমকি দেওয়ার পরও কোন নেতার বিরুদ্ধে রাজ্য প্রশাসনের প্রধান কোন ব্যবস্থা নেয় না। সেটিং এর কথা ছেরেই দিন, কারণ এরাই সব দলের সম্পদ।