ছাপ ফেলতে পারল না ছাপাক

0
60

সাতদিন ডেস্কঃ  অ্যাসিড অাক্রান্ত এক কিশোরির কাহিনী ছাপাক। মেঘনা গুলজার পরিচালিত এই  ছবির  বিষয়বস্তু অত্যন্ত উদ্বেগের। দুর্বল  চিত্রনাট্যের জন্য দর্শকদের মনে তেমন একটা দাগ কাটতে পারল না ছাপাক। অ্যাসিড অাক্রান্তদের লড়াই শুধু মাত্র এনজিও ও অাদালতের মধ্যে অাটকে ফেলায়  কোথায় যেন প্রাপ্তিতে ঘাটতি থেকে গেল। খুচরো দোকানে অ্যাসিড বিক্রি বন্ধ হলেই যে অ্যাসিড অাক্রমণ বন্ধ হবে না, এই সত্য যেন ছবিতে চাপা পড়ে গেল। অ্যাসিড হামলার পিছনে সমাজের পুরুষতান্ত্রিক  ও অাধিপত্য কায়েমের যে মানসিকতা কাজ করে তা ছবিতে দেখতে পাওয়া গেল না। দীপিকা পাড়ুকনের অভিনয়ের তেমন কোন উল্লেখযোগ্য দিক না থাকলেও চরিত্রের সঙ্গে মানানসই তাঁর মেকঅাপ সত্যি বাস্তবের কাছাকাছি। প্রতিদিন দেশের কোথাও না কোথাও  মহিলাদের উপর অ্যাসিড হামলা হচ্ছে সরকার বা প্রশাসন কার্যত নিষ্ক্রিয়। সেই দিক থেকে ছাপাক অ্যাসিড অাক্রান্তদের সমস্যা সম্পর্কে সমাজকে সচেতন করার লক্ষে একটা  পদক্ষেপ ।  জেএনইউতে দিপীকা পাড়ুকনের উপস্থিতির কারণে বিজেপির সমর্থকদের তরফে ছাপাক ছবিকে বয়কট করার ডাক দেওয়া হয়েছিল। এখানেও তাদের চালে ভুল হল। কারণ ছবিতে হামলাকারীদের মধ্যে তারা ধর্মীয় মেরুকরণের রসদ খুঁজে পেতেন।