অবিলম্বে ডিএ দেওয়ার দাবিতে রাজ্য জুড়ে কর্মচারী সংগঠন নবপর্যায়ের বিক্ষোভ

0
3832

সাতদিন ডেস্কঃ- রাজ্য সরকার নতুন বেতনক্রম চালু করে দিয়েছে।তবে সরকারি কর্মচারীদের বকেয়া ডিএ নিয়ে কোন ঘোষণা নেই রাজ্য সরকারের তরফে।স্টেট অ্যাডমিনিস্টেশন ট্রাইব্যুনাল বা স্যাটের নির্দেশ সরকার অগ্রাহ্য করেছে।নির্দেশ ছিল পে কমিশনের সুপারিশ কার্যকর করার তিনমাস আগেই বকেয়া ডিএ মিটিয়ে দিতে হবে।সরকারের এই আদালতের নির্দেশ মান্য না করার বিরুদ্ধে সরকারি কর্মচারীদের একাংশ যেমন আদালতে মামলা লড়ছেন,তেমনি ওয়েষ্ট বেঙ্গল গভর্নমেন্ট এমপ্লয়েজ ইউনিয়ন(নবপর্যায়)গোটা রাজ্যের জেলায় জেলায় বিক্ষোভ অবস্থান করে সরকারকে অবিলম্বে কর্মীদের বকেয়া ডিএ সহ যাবতীয় পাওনা মিটিয়ে দেওয়ার দাবি তোলে।কলকাতায় বেঙ্গল চেম্বার অব কমার্সের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশে নবপর্যায়ের কর্মী সমর্থকরা উপস্থিত হয়ে সরকারের কাছে ছ দফা দাবি পেশ করেন।সেই দাবিতে অবিলম্বে কর্মীদের বকেয়া ডিএ মিটিয়ে দেওয়ার বিষয়টি যেমন ছিল,একই সঙ্গে নতুন পে কমিশনের রিপোর্ট সর্বসমক্ষে প্রকাশ করা,সমস্ত অস্থায়ী কর্মীদের স্থায়ী করা,বেতন ভাতা দেওয়া,কর্মীদের বাড়ি ভাড়া বাবদ পাওনা মিটিয়ে দেওয়ার বিষয়গুলিও রাখা হয়।

সংগঠনের পক্ষ থেকে সমস্ত কর্মীদের একত্রিত হয়ে লড়াইয়ের আহ্বান জানানো হয়।বলা হয় সরকারের আক্রমণ প্রতিহত করতে কর্মীদের সংগোঠিত আন্দোলন একান্ত দরকার।সরকারকে তাদের দাবি মানতে বাধ্য করে কর্মীদের সংঘবদ্ধ লড়াইই যে একমাত্র হাতিয়ার সে বিষয়ে জোর দিয়ে বক্তব্য পেশ করেন নবপর্যায়ের সদস্যরা।দাবি না মিটলে আগামী দিনে আর জোরদার আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়।সরকার যখন স্যাটের নির্দেশ অমান্য করে তাদের নতুন বেতন ক্রম চালু করে দিয়েছে তখন বকেয়া ডিএ না নিয়ে সেই নতুন বেতন নিতে কর্মীরা কেন সম্মত হলেন?এতে কর্মীরাও কি পরোক্ষে আদালতের নির্দেশ না মানার দায় জড়িয়ে পড়লেন না?এই প্রশ্নের উত্তরে   নবপর্যায়ের  সদস্য শ্রীবাস তেওয়ারি জানান,সরকার তাদের কোন অবশান না দিয়েই বাড়তি মাইনে তাদের একাউন্টে ফেলে দিয়েছে,তাই এ বিষয় তাদের কোন অবস্থান নেওয়ার পরিস্থিতিই নেই নবপর্যয়ের পক্ষ থেকে দাবি করা হয় নতুন বেতন তাদের প্রাপ্য,একই সঙ্গে বকেয়া ডিএও তাদের প্রাপ্য,সরকারকে তা যতো তাড়াতাড়ি সম্ভব মিটিয়ে দিতে হবে।দাবি না মেটা পর্যন্ত তাদের আন্দোলন চলবে বলে বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে ঘোষণা করা হয়।