তাপস পালের জীবনাবসান, তাঁকে ঘিরে বিতর্কেরও অবসান?

0
43

সাতদিন ডেস্কঃ- প্রযাত হলেন অভিনেতা ও তৃণমূল কংগ্রেসের প্রাক্তন সাংসদ তাপস পাল।মৃত্যু কালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬১ বছর।পারিবারিক সূত্রে জানানো হয়েছে তিনি বেশ কিছুদিন ধরেই স্নায়ু  রোগে ভুগছিলেন। দিন কয়েক আগেই তাকে মুম্বাইয়ের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল।সোমবার মাঝরাতে তাঁর মৃত্যু হয়।অভিনেতা হিসেবে জনপ্রিয় ছিলেন তাপস পাল।দাদার কী্র্তি,সাহেব,রাগঅনুরাগ,ভালবাসা ভালবাসা,গুরুদক্ষিণা ছবিতে তার অভিনয় প্রসংশিত হয়।

অভিনয় জগত থেকে রাজনীতিতে এসেই বিতর্কিত হয়ে উঠতে থাকেন তাপস পাল।এ রাজ্যে অনৈতিক আর্থিক সংস্থা বা চিটফান্ডের সঙ্গে যুক্ত হয়ে পড়ার অভিযোগ ওঠে তাঁর বিরুদ্ধে।২০১৮ সালের প্রথমদিকে তাকে সিবিআই গ্রেপ্তার করে রোজভ্যালির মত চিটফান্ডের  সংস্থার সঙ্গে যোগসাজসের অভিযোগে। প্রায় তের মাস তিনি সেই পর্যায় সিবিআই হেপাজতে ছিলেন।তৃণমূলের সাংসদ থাকার সময়ই বন্দি জীবন কাটাতে হয় তাঁকে।এর পর জামিন হলে তাকে আর সেভাবে সক্রিয় রাজনীতিতে দেখা যায় নি।নিজের সাংসদ এলাকায় গিয়ে একবার বিরোধী রাজনৈতিক দল সিপিএমের বিরুদ্ধে বলতে গিয়ে মহিলাদের সম্পর্কে অত্যন্ত কুসসিত মন্তব্য করেন যা নিয়ে গোটা দেশে আলোড়ন হয়।একজন অভিনেতা ও সাংসদ কীভাবে এতটা নোংরা ভাষা ব্যবহার করতে পারেন তা নিয়ে তখন তুমুল সমালোচনা শুরু হয়।অনেকের মতে সেই সমালোচনা ও নিন্দার কথা মাথায় রেখেই ২০১৯ আর তাকে সাংসাদ পদে লড়াই করার কথা বিবেচনা করেন নি তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাপস পালের মৃত্যু টলিউডের একসময়ের নক্ষত্রপতনের পাশাপাশি রাজনৈতিক ব্যক্তি হিসাবে তাপস পালের অাচরণ নিয়ে যে বিতর্ক তৈরি হয়েছিল তারও হয়তো অবসান হল এদিন।