কেজরিওয়ালের হাতেও দিল্লি দাঙ্গার রক্তঃ বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য

0
986

সাতদিন ডেস্কঃ-রাজ্যসভার প্রার্থী হিসেবে তাঁর নাম ঘোষণা করা হয়েছে দিন কয়েক আগে।কংগ্রেস ও বামেদের যৌথ সমর্থনে এবার এ রাজ্য থেকে বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্যই লড়বেন বলে সিদ্ধান্ত হয়ে গেছে।আগামী ১২ মার্চ বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য তার মনোনয়ন পেশ করবেন।তার আগেই নিজের বিজেপি বিরোধী চরম অবস্থান জানিয়ে বিজেপি বিরোধিতার মুখোশ পড়ে যারা বিজেপির রাজনৈতিক দর্শনকে মদত দিচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিলেন এই বাম নেতা ও বিশিষ্ট আইনজীবী।এ রাজ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেমন নরম হিন্দুত্বের আমদানি করে বিজেপির প্রবেশের রাস্তা করে দিচ্ছেন বিকাশবাবুর মতে দিল্লিতেও অরবিন্দ কেজরিওয়াল একই রকমভাবে বিজেপির মুখোশ হিসেবে কাজ করছেন।দিল্লির দাঙ্গার জন্য আপকে একশভাগ দায়ী করে বিকাশবাবু বলেন,”এতগুলো মানুষ হত্যার রক্ত কেজরিওয়ালের হাতেও লেগে আছে।কেজরিওয়ালরা আসলে বিজেপিরই মুখোশ।এরা গোটা দেশ জুড়ে ছড়িয়ে আছে।বিরোধী ঐক্যকে প্রতিহত করে এরাই বিজেপির একচ্ছত্র আধিপত্য প্রতিষ্ঠার সহায়ক শক্তি হিসেবে কাজ করছে।কেজরিওয়ালদের মত ভন্ড বিজেপি বিরোধীদের মুখোশ খুলে দিতে না পারলে মানুষের বিপদ বাড়বেই।”দিল্লিতে যে দাঙ্গা অনুষ্ঠিত হয়ে গেল তা বিজেপি ও আপের মিলিত চিত্রনাট্য অনুযায়ী হয়েছে বলে অভিমত বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য়ের।

    বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য মনে করেন এই মুহূর্তে ভারতের সংবিধানের যে ধর্মনিরপেক্ষ নীতি তা বিপদের মুখে এসে দাঁড়িয়েছে,তাই বাম ও কংগ্রেসের মত ধর্ম নিরপেক্ষ রাজনৈতিক দলগুলোকে একত্রিত হয়েই তার মোকাবিলা করতে হবে।বিকাশবাবুর আশঙ্কা বিজেপি আপের মত বিভিন্ন আঞ্চলিক দলগগুলোকে ব্যবহার করে তাদের সাহায্য নিয়েই গোটা দেশে হিন্দুত্বকে জাতীয়তাবাদের মোড়ক হিসেবে প্রচার করবে।এই প্রচারের জন্য তারা দাঙ্গা ও ধর্মীয় বিদ্বেষের বিষ ছড়াবে।আপের মত নীতি ও দর্শনহীন আঞ্চলিক দলগুলো শুধু ক্ষমতা ধরে রাখার লোভে বিজেপির সঙ্গে থাকবে।মানুষ এই প্রবণতা বুঝতে না পারলে মানুষেরই সবচেয়ে বিপদ হবে বলে জানান এই বাম নেতা।

   তবে কী গোটা দেশে আপ বা তৃণমূলের মত আঞ্চলিক দলগুলোকে বাদ দিয়েই বিজেপি বিরোধী রাজনৈতিক ঐক্য গড়ে তোলা উচিত বলে তিনি মনে করেন?এই প্রশ্নের উত্তরে বিকাশবাবু জানান,এরা যদি বিজেপি বিরোধী মঞ্চে আসতে চায় তবে এদের বিজেপি বিরোধিতার আন্তরিকতার প্রমাণ দিতে হবে।এরা বিজেপি বিরোধি মঞ্চে থাকলেও এদের হাতে বিরোধী ঐক্যের রাশ ছাড়া যাবে না।এদের এমন করে ব্যবহার করতে হবে যাতে এরা বিশ্বাসঘাতকতা করলে সাধারণ মানুষের কাছে তা পরিষ্কার হয়ে যায়।বিকাশবাবু মনে করেন দিল্লির দাঙ্গায় আপের ভূমিকা তাদের আসল চেহারা দিল্লি ও ভারতের সাধারণ মানুষের কাছে পরিষ্কার হয়ে গেছে।বিজেপি বিরোধী হিসেবে কেজরিওয়ালরা তাদের বিশ্বাস যোগ্যতা হারিয়েছেন।এদের এই চরিত্রের কথা মাথায় রেখেই এদের ব্যবহার করতে হবে বলে মনে করেন বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য।