করোনার জেরে ক্ষুদ্র সংস্থার ও ফ্রিল্যান্স   সাংবাদিকদের জন্য ব্যবস্থা নিতে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে আবেদন

0
28
  সাতদিন ডেস্কঃ-চলতে থাকা দীর্ঘ লকডাউনের ফলে চরম দুর্গতির মধ্যে পড়েছেন সাংবাদিকদের একাংশও।গোটা জেলা জুড়ে যে ছোট ছোট পত্রিকা প্রকাশিত হত তা এখন বন্ধ,রুজি-রোজগার নেই সেই সব পত্র-পত্রিকায় কাজ করতেন এমনসব সাংবাদিকদের।চরম সংকটে পড়েছেন ফ্রিল্যান্স সাংবাদিকরাও।জেলার ছোট ছোট সব ছাপাখানা বন্ধ থাকায় কগজ প্রকাশ বন্ধ।ছাপাকর্মী থেকে সংবাদকর্মী সকলেই চরম আর্থিক অনটনের মধ্যে দিন কাটাতে বাধ্য হচ্ছেন।সমস্যায় পড়েছে নিউজ পোর্টালগুলোও।লকডাউনের জেরে তারা খবর সংগ্রহ করতে যেতে পারছে না সবজায়গায়।ওয়ার্ক ফ্রম হোম সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে সবচেয়ে সমস্যার।যাতায়াতের সমস্যার সামনে পড়ে অনেক নিউজ পোর্টাল আপাতাত বন্ধ।আর্থিক সংকটে ফটোজার্নালিস্ট ও জার্নালিস্টরা।এই সংকটের মুখে পড়ে সাংবাদিকদের একাংশ রাজ্য সরকারের কাছে সয়াহতার আবেদন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
    দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলা প্রেস এ্যসোসিয়েশন এ বিষয়ে মুখ্যন্ত্রীর কাছে দু-স্থ সাংবাদিকদের ত্রাণ দেওয়ার আবেদন করেছে।এই সংস্থার পক্ষ থেকে জেলার ছোট ছোট পত্রিকাগুলি যাতে প্রকাশিত হতে পারে তার জন্য সরকারের উদ্যোগ নেওয়ার পাশাপাশি সাংবাদিকদের এই কঠিন সময়ে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার আবেদনও রাখা হয়েছে।দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলা প্রেস এ্যসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে wbcmro@gmail.com এই ঠিকানায় মেইল করে দুঃস্থ সাংবাদিকদের জন্য অবিলম্বে কিছু উদ্যোগ নিতে সরকারকে সত্রিয় হতে বলতে সমস্ত সাংবাদিকদেও আবেদন করা হয়েছে।সাংবাদিকদের মধ্যে কেউ কেউ প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন কলকাতা প্রেস ক্বাব মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলের জন্য সাহায্য চেয়ে প্রেস ক্লাবের সদস্যদের কাছ থেকে সাহায্যের আবেদন করলেও কেন এখনও পর্যন্ত রাজ্য জুড়ে অসংখ্য দুঃস্থ সাংবাদিকদের সাহায্যের বিষয়ে কোন উদ্যোগ নিয়ে উঠতে পারল না?সাংবাদিকদের মধ্যে অনেকেই মনে করেন এ বিষয়ে কলকাতা প্রেস ক্লাবের অবশ্যই উদ্যোগ নেওয়া উচিত