করোনা নিয়ে গণমাধ্যমে বিভ্রান্তিমূলক তথ্য না রাখার বিজ্ঞানিদের কাছে অার্জি ISI এর ৫ শিক্ষকের

0
80

সাতদিন ডেস্কঃ করোনা অাবহে প্রায় প্রতিদিনই টেলিভিশন, সংবাদপত্র বা সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা তথ্য সামনে অাসছে। যার মধ্যে একটা বড় অংশই বিভ্রান্তিমূলক ও অর্ধসত্য। অার এই সব তথ্য জোগানোর ক্ষেত্রে বিজ্ঞানি ও বুদ্ধিজীবীদের একটা বড় অংশের ভূমিকা রয়েছে। এই  ধরনের তথ্যের ফলে মানুষের দুর্ভোগ অারো বেড়েছে। তাই এবার কলকাতার ইন্ডিয়ান স্ট্যাটিসটিক্যাল ইন্সটিটিউটের ৫ শিক্ষক এক অাবেদন জারি করে বিজ্ঞানি ও বুদ্ধিজীবীদের এই ধরনের তথ্য গণ মাধ্যমে পরিবেশন না করার অাবেদন জানিয়েছেন।

অাবেদনে ওই ৫ শিক্ষক বলেছেন করোনা অাবহে শুধুমাত্র ধারনা ও অনুমানের  ভিত্তি করে কিছু বলার এখন লকডাউন হওয়া উচিত। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি করোনাকে যদি পরাস্ত না করতে পারে তাহলে করোনার পরিবেশে বাঁচার জন্য নিজেদের তৈরি করতে হবে জনগণকে। সেক্ষেত্রে বিভ্রান্তি বা মিথ্যে অাশার কথা  না বলা হলে তা সাহায্য করবে সেই পরিবেশ তৈরি করতে। অাবেদনে স্বাক্ষর করেছেন অরিজিত্ বিষ্ণু,দেবরূপ চক্রবর্তী, প্রবাল চৌধুরী,রজত হাজরা ও দেবাশীষ সেনগুপ্ত।

করোনা মোকাবিলায় লকডাউন একমাত্র হাতিয়ার থেকে শুরু করে ভ্যাকসিন সহ নানা বিষয় রোজই নানা মহলে নানা বিভ্রান্তিমূলক তথ্য পরিবেশন করা হচ্ছে। এই অাবহে ISI এর ৫ শিক্ষকের এই অাবেদন যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু ওয়াকিবহাল মহলের একাংশের মতে যখন সরকারের বিজ্ঞানিদের তরফে অধর্সত্য তথ্য মানুষকে বলা হচ্ছে, বা তথ্য চেপে দেওয়া হচ্ছে সেই সময় সমাজ সচেতন  বিজ্ঞানিদের কি সরব হওয়া উচিত নয়?