প্রধানমন্ত্রীর করোনা প্যাকেজ আসলে জুমলাঃকটাক্ষ মহম্মদ সেলিমের

0
40

সাতদিন ডেস্কঃ-করোনা আবহে দেশের অর্থনীতিকে আত্মনির্ভরতার দিশা দিতে প্রধানমন্ত্রী যে ২০লক্ষ কোটি টাকার প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন তাকে নিছকই একটা জুমলা বলে কটাক্ষ করলেন সিপিএমের পলিটব্যুরোর সদস্য মহম্মদ সেলিম। প্রাক্তন এই বাম সাংসদের মতে দেশের অর্থমন্ত্রী প্যাকেজের যে ব্যাখ্যা উপস্থিত করছেন তাতে পরিষ্কার দেশের শ্রমজীবী মানুষ ও অর্থনৈতিকভাবে বিপর্যস্তদের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের কোন ভাবনা নেই।অর্থমন্ত্রীর কথায় পরিষ্কার হয়ে যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রী যে ২০ লক্ষ কোটি টাকার কথা বলেছেন তাতে যুক্ত ইতিপূর্বেই রিজার্ভ ব্যাঙ্কের লিকিউডিটি বাবদ বরাদ্দ করা অর্থও।এ ছাড়াও এর আগেই অর্থমন্ত্রী ১লক্ষ ৭০ হাজার কোটি টাকার যে বরাদ্দ ঘোষণা করেছিসেন তাও এই ২০ লক্ষ কোটির সঙ্গে যুক্ত।সব মিলিয়ে গোটা বিষয়টাই একটা অংকের জাগলারি বলে বলেন মহম্মদ সেলিম।তাঁর মতে যে দাবি বামপন্থীদের পক্ষ থেকে বার বার করা হচ্ছে তা হল,গরিব মানুষের হাতে সরাসরি টাকা পৌঁছে দিতে হবে।আর্থিকভাবে চরম ক্ষতিগ্রস্থদের যাবতীয় দায়িত্ব রাষ্ট্রকে নিতে হবে।কৃষক ও শ্রমজীবী মানুষের জন্য অবিলম্বে নির্দিষ্ট পরিকল্পনা ঘোষণা করতে হবে।অথচ কথা ও পরিসংখ্যানের জাগলারিতে এই বিষয়টাকে বার বার এড়িয়ে যাওয়া হচ্ছে।পরিযায়ী শ্রমিকদের ভয়াবহ দুরবস্থার কথা উল্লেখ করে মহম্মদ সেলিম মনে করিয়ে দেন এই ধারাবাহিক বিপর্যয় দেখেও দেশের প্রধানমন্ত্রী যেভেবে নীরব থাকতে পারলেন তাতে দেশের গরিব মানুষের প্রতি বর্তমান কেন্দ্রীয় সরকারের দৃষ্টিভঙ্গি পরিষ্কার হয়ে যায়।

মহম্মদ সেলিম বলেন,এর আগেও নানাবিধ জুমলাবাজি করেছেন প্রধানমন্ত্রী।বিহারে নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে সেখানকার মানুষকে বলেছেন কত টাকার উন্নয়ন প্যাকেজ চাই?তারপর নিজেই বলে গেছেন,এক লক্ষ কোটি,দেড় লক্ষ কোটি, নাকি দু লক্ষ কোটি?এরপর বিহারের মানুষের জন্য সোয়া দু লক্ষ কোটি টাকার উন্নয়ন প্যাকেজ যোঘণা করে এসেছিলেন,যে টাকা এখনও বিহারে গিয়ে পৌঁছুতে পারেনি বলে কটাক্ষ করেন সেলিম।এই ভয়াবহ সময়ে দেশের মানুষের সঙ্গে এরকম মস্করা করার ফল বিজেপিকে ভুগতে হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন সিপিএমের এই পলিটব্যুরো সদস্য।