২০ লক্ষ কোটি টাকার মোদি প্যাকেজের পর অর্থমন্ত্রীর ঘোষণায় গরিবের হাতে শুধুই পেনসিল!

0
205

সাতদিন ডেস্কঃ প্রতিদিনই পরিযায়ী শ্রমিক ও গরিব মানুষদের দুর্দশার খবর সামনে এলেও, অাজও এলো না তাদের হাতে টাকা। অন্তত প্রধানমন্ত্রীর ২০ লক্ষ কোটি টাকার প্যাকেজের ঘোষণার পরের দিন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণের ভাষণে পেট ভরলো না অনাহার অর্ধাহারে থাকা  মানুষগুলোর। লকডাউনের ৫০দিনের মাথায় ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পে কিছু ছাড় ও ৩ লক্ষ কোটি টাকা ঋণের কথা অবশ্যই এদিন সরকার ঘোষণা করেছে। কিন্তু সেই টাকা কবে খরচ হয়ে অাম অাদমির রোজগারে পরিণত হবে তা বোঝা গেল না এদিনও।

প্রধানমন্ত্রীর ২০ লক্ষ কোটি টাকার প্যাকেজকে বিগ জিরো বলে কটাক্ষ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যগুলিকে কোন অর্থ দেওয়ার কথা এদিন ঘোষণা না হওয়ায় কার্যত হতাশ মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্যের অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র জানিয়েছেন ২০ লক্ষ কোটি টাকার প্যাকেজ অাসলে ভাঁওতা। ইতিমধ্যেই  ব্যাঙ্কগুলিকে  ঋণ দেওয়ার জন্য ৮ লক্ষ কোটি টাকা অর্থ জোগানো হবে বলে ঘোষণা করেছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক।এর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী কল্যাণ যোজনার ১.৭০ লক্ষ কোটি টাকা যোগ করতে হবে। অর্থাত্ ১০ লক্ষ কোটি টাকার প্যাকেজ, ২০ লক্ষ কোটির নয় বলে জানিয়েছেন অমিত মিত্র। কিন্তু ঠিক কত পরিমান অর্থের জোগান হবে এই প্যাকেজের ফলে? বিশেষজ্ঞদের মতে সরকারের কাছে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের বকেয়ার পরিমাণ কয়েক লক্ষ কোটি টাকা। সেই টাকাও  এর মধ্যে ঢুকবে কারণ অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ জানিয়েছেন অাগামী ৪৫ দিনের মধ্যে এই সেক্টরে সরকারের যা বকেয়া রয়েছে তা কেন্দ্র পরিশোধ করে দেবে। তাই অর্থনীতিবিদদের একাংশের  মতে অর্থনীতিতে নগদের জোগান বাড়বে  মেরেকেট  ৪ থেকে ৫ লক্ষ কোটি টাকা।জটিল হিসেব নিকেষের পর যে যাই পাক না কেন গরিব মানুষের হাতে  শুধুই পেনসিল থাকবে  বলে মনে করেছেন  অর্থনীতিবিদদের অনেকে।