২১টাকা দরে চাল কিনে পরিযায়ী শ্রমিকদের রান্না করে খাওয়াক রাজ্য সরকারঃ নির্মলার দ্বিতীয় কিস্তির এটাই ফিরিস্তি!

0
558

সাতদিন ডেস্কঃ গাড়ি বা ট্রেনের চাকায় পিষ্ট হয়ে প্রায় প্রতিদিন পরিযায়ী শ্রমিকদের মৃত্যু হচ্ছে। অার লকডাউনের ৫১তম দিনে দেশের অর্থমন্ত্রী জানালেন রাজ্য সরকার যদি চায় ২১টাকা দরে কেন্দ্রের থেকে চাল কিনে রান্না করা খাবার পরিযায়ী শ্রমিকদের খাওয়াতে পারে। অার তাই  নির্মলা সীতারমণের দ্বিতীয় কিস্তির ঘোষণাকে উপহাস বললেও বোধ হয় কম বলা হয়। অর্থমন্ত্রী জানিয়েছেন পরিযায়ী শ্রমিকেরা গ্রামে বা গন্তব্যে ফিরলে তাঁদের মাসে মাথা পিছু ৫ কেজি চাল বা গম ও পরিবার পিছু মাসে এক কেজি চানা দেওয়া হবে। বিনা কার্ডে কেন্দ্রের তরফে পরিযায়ী শ্রমিকদের এই খাদ্য শস্য দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী। এর জন্য কেন্দ্রের তরফে বরাদ্দ ৩৫০০ কোটি টাকা।অর্থনীতিবিদদের একাংশ অাগেই জানিয়েছেন অবিলম্বে  গরিব পরিবারের হাতে ৭৫০০ থেকে ১০ হাজার টাকা তুলে দেওয়া দরকার। এ বিষয় কেন্দ্রের সরকার যে কর্নপাত করত চাইছে না তা এদিনও স্পষ্ট।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ২০ লক্ষ কোটি টাকার প্যাকেজের  প্যাকেজিং যে এত বাজে হতে পারে তা অনেকেই বোধ হয়  ভাবেননি। কিস্তিতে কিস্তিতে সীতারমনের ঘোষণা কোভিড পরবর্তী স্টিমুলাস প্যাকেজের থেকে বেশি বাজেট ঘোষণার মত শোনাচ্ছে। এ যেন  সরকার নিজের পিঠ নিজেই চাপড়াচ্ছে। এদেশে করপোরেটরা সরকারের ছাড় পেতে পারে, নীরব মোদিরা ব্যাঙ্ক লুট করতে পারে, বিজয় মালিয়ারা ঋণ নিয়ে হজম করতে পারে কিন্তু গরিবের শুধু গরম ভাত চাইলেও পেতে পারে না। সময়ের দাবি ছিল দেশের গরিব পরিবারগুলির হাতে নগদের জোগান দেওয়া। সরকার সেই পথে হাঁটতে চাইল না। ফল কোরনায় মানুষ মরুক বা না মরুক অনাহারে অর্ধাহারে মানুষের থাকা নিশ্চিত করেছে সরকার।