৮জুন থেকে রাজ্যে সব দফতর পুরোমাত্রায় খুলে যাবে ,মুখ্যমন্ত্রীর এই ঘোষণার পরও পরিবহণ দফতরের সক্রিয়তা লক্ষ্য করা যাচ্ছে না কেন?

0
51

সাতদিন ডেস্কঃ শুক্রবার নবান্ন থেকে সাংবাদিক বৈঠক করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন ৮ জুন থেকে রাজ্য সমস্ত সরকারি ও বেসরকারি দফতর পুরোমাত্রায় খুলে যাবে।সেই সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন বাসে ২০জনের পরিবর্তে বাসের সব সিটে যাত্রী বসান যাবে। কেন সংখ্যাটা  ২০ ছিল কেন তার বদলে বাসের সব সিট যাত্রী তোলার নিয়ম করা হল তার ব্যাখ্যা নেই। সব থেকে বড় কথা বেসরকারি বাস ছাড়া কলকাতা ও রাজ্যে যেখানে পরিবহন কার্যত অচল সেখানে পরিবহন দফতরের সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর সম্বন্বয়ের  অভাব প্রকট।

কিছুদিন অাগে মুখ্যমন্ত্রী বললেন বেসরকারি বাসের মালিকেরা ভাড়া ঠিক করুন। অার পরিবহন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারি বললেন বেসরকারি বাসের ভাড়া বাড়বে না।ফলে বেসরকারি বাস রাস্তায় নামেনি এখনও। মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন ২৭ তারিখ থেকে অটো চলবে। অথচ পুলিসের কাছে সেই নির্দেশ এসে পৌঁছতে সময় গড়িয়ে গেল ২৭ তারিখ দুপুর পর্যন্ত। প্রতিটি ক্ষেত্রেই পরিবহণ দফতরের কাজের  সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর  নির্দেশের তালমিলের বড় অভাব।

পুরোদমে গণপরিহণ চালু না হলে দফতর কী করে পুরোমাত্রায় চালু হবে তা স্পষ্ট নয়। স্পষ্ট হচ্ছে না পরিবহন দফতরের সক্রিয়তাও। কিন্তু প্রশ্ন উঠছে রাজ্যে যেখানে বিরোধীরা বলেন একটা পোস্ট বাকিরা ল্যাম্পপোস্ট সেখানে মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশের পরও পরিবহণ দফতরের সক্রিয়তা লক্ষ্য করা যাচ্ছে না কেন? ইতিমধ্যেই রাজ্যের এক মন্ত্রী প্রকাশ্যে অারেকমন্ত্রীর বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন। তাহলে কি পরিবহন দফতরের সক্রিয়তার অভাবের পিছনে অন্য কোন সমীকরণ লুকিয়ে অাছে?