ত্রাণে দুর্নীতির প্রতিবাদকারীদের গ্রেপ্তারের পরেও জামিন মিলল না

0
20

সাতদিন ডেস্কঃ-গত সোমবার দেহঙ্গায় একদল গণআন্দোলন কর্মী আম্ফান দুর্যোগে রাজ্য সরকার যে ত্রাণ দিচ্ছে তা নিয়ে শাসক দলের স্থানীয় নেতারা দুর্নীতি করছে বলে অভিযোগ করে প্রতিবাদে সামিল হন।গণআন্দোলনের কর্মীদের সঙ্গে যুক্ত হয়ে স্থানীয় মানুষজনও প্রতিবাদে সামিল হয়।অভিযোগ এই সময় অভিযোগকারীদের উপর চড়াও হয়ে তৃণমূলের স্থানীয় গুন্ডারা মারধোর শুরু করে প্রতিবাদীদের।মানুষজন রুখে দাঁড়াতে শুরু করায় সংঘর্ষের পরস্থিতি তৈরি হয়।এই সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করার অছিলায় পুলিশ এসে গণআন্দোলনের কর্মীদের গ্রেপ্তার করে বলে অভিযোগ ওঠে।সোমবার থেকে হাজতে থাকার পরও বুধবার বারাসাত কোর্ট এই গণআন্দোলনকারীদের জামিন না দেওয়ায় রাজ্যের বিচার বিভাগের নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে মানবাধিকার সংগঠন এপিডিআর।এপিডিআরের মতে যেখানে রাজ্যের প্রায় প্রতিটি জেলায় ত্রাণ-বন্টন নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ উঠছে সেখানে দুর্নীতির প্রতিবাদকারীদের গ্রেপ্তার করে পুলিশ প্রশাসন যেমন শাসক দলের প্রতি তাদের পক্ষপাতিত্ব দেখাচ্ছে,তেমনি বিচার বিভাগও এ বিষয়ে চোখ বুঝে পুলিশের বয়ানে ভরসা রেখে যেভাবে জামিন অগ্রাহ্য করল তা এ রাজ্যের নাগরিকদের জন্য খুবই বিপজ্জক দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।এপিডিআরের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে এই ঘটনা প্রমাণ করছে রাষ্ট্র দুর্নীতিকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার চেয়ে দুর্নীতির প্রতিবাদ করে যারা তাদের বিরুদ্ধেই বেশী সক্রিয়।

সোমবার দেগঙ্গায় ত্রাণ কাজে দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদকারী,শাওন,নাাতাশা,রিণা,সুদর্শন সহ মোট ১৫ জনকে গ্রাপ্তার করে পুলিশ।এদের মধ্যে অনেকেই একটি রাজনৈতিক সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত বলে জানা গেছে।ত্রাণ দেওয়া ও ত্রাণে দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করাটাই এদের সাম্প্রতিক কর্মসূচি ছিল বলে সংগঠনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।সংগঠন অবিলম্বে সকল প্রতিবাদীর মুক্তির দাবি করেছে এবং সাধারণ মানুষকেও এর বিরুদ্ধে সরব হওয়ার আহ্বান রেখেছে।