৩৫ হাজার টাকার রেমডেসিভির বাজারে অাসার পর ভারতে করোনা চিকিত্সায় অনুমোদন মিলল ১০টাকার ডেক্সামেথাসনের

0
49

সাতদিন ডেস্কঃ করোনা চিকিসায় এবার স্বল্প দামের স্টেরয়েড ওষুধ ডেক্সামেথসনের ব্যবহারের অনুমোদন দিল ভারত। শনিবার এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে ICMR।  সঙ্কটাপন্ন করোনা অাক্রান্ত রোগীকে স্বল্প মাত্রায় ডেক্সামেথাসন ওষুধ দিলে তার সুফল পাওয়া যাচ্ছে বলে দাবি করা হয়েছিল লন্ডনের এক গবেষণায়। গত ১৬জুন  ব্রিটেনের রিকভারি নামের এই ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে ফলাফল ঘোষণার পর সেদেশের সরকার করোনা চিকিত্সায় ডেক্সামেথাসনের ব্যবহারের অনুমোদন দেয়। অথচ কোন অজ্ঞাতকারণে এদেশে গুরুতর রোগীর চিকিত্সার ক্ষেত্রে মার্কিন সংস্থার ওষুধ রেমডেসিভিরের অনুমোদন ও ব্যবহার অাগে শুরু হল এদেশে। রেমডেসিভিরের এদেশের জেনেরিক সংস্করণের কোর্সের দাম ৩৫ হাজার টাকার কাছাকাছি। প্রতিটি  ভায়ালের দাম ৫৪০০ টাকা। ভারতের বাজারে ডেক্সামেথাসন ইঞ্জেকশনের দাম  ১০ টাকার মধ্যে। ইতিমধ্যে অার্থারাইটিস সহ একাধিক রোগের চিকিত্সায তা ব্যবহারও করা হয়ে থাকে। যদিও রেমডেসিভির বা ডেক্সামেথাসন দুটি অালাদা ওষুধ। এই দুটির  কোনটিই করোনার চিকিত্সায় অব্যর্থ দাওয়াই নয়, তবে করোনা রোগীর চিকিত্সায় এদুটো  ওষুধের ব্যবহারে সুফল মিলিছে বলে গবেষকদের একাংশের দাবি। এই দুটো ওষুধই বাজারে অাগে থেকে পাওয়া যায়।

ব্রিটেনের গবেষণায় দেখা গেছে ভেন্টিলেটরে থাকা রোগী বা করোনা অাক্রান্ত হওয়ার পর অক্সিজেনের মাত্রা অত্যধিক কমে গেছে এমন গুরুতর রোগীকে ডেক্সামেথাসন দেওয়ার পর অনেকেই সুস্থ হয়ে উঠেছেন বলে জানিয়েছেন অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক তথা এই ট্রায়ালের সঙ্গে যুক্ত মার্টিন ল্যান্ড্রে। গবেষণা থেকে দেখা গেছে ওই ওষুধ প্রয়োগ করায় করোনায় অাক্রান্ত রোগীর মৃত্যুর হার কমে গেছে প্রায় ৩৫ শতাংশ। গবেষকদের দাবি অল্প দামের এই ওষুধ করোনার চিকিত্সায় যুগন্তকারী প্রভাব অানতে পারে।   তবে একই ট্রায়াল থেকে অাগে জানান হয়েছিল বহুল চর্চিত হাইড্রক্সি ক্লোরোকুইন প্রয়োগ করায় করোনায় ভাল ফল পাওয়া যায়নি।

করোনা অাতঙ্ক যেমন বাড়ছে তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে বিভ্রান্তি। ওষুধ বা ভ্যাকসিন নিয়েও নানা সময় নানা কথা শোনান হচ্ছে। কখনও বলা হচ্ছে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন বন্ধ করার কথা, কখনও বলা হচ্ছে এতে ফল পাওয়া যাচ্ছে ভাল। সেই সঙ্গে রয়েছে ওষুধ ও ভ্যাকসিনের বাণিজ্যিক বিষয়টি। ফলে কোনটা জনস্বাস্থ্যের খবর অার কোনটার পিছনে রয়েছে মুনাফার গন্ধ তা সঠিকভাবে বলা মুশকিল।  রেমডেসিভিরের বাজারের অাসার পর ডেক্সামেথাসনকে করোনা চিকিত্সায় অনুমতি দেওয়ার পিছনে বিজ্ঞান না মুনাফা কোন লবিটা বেশি সক্রিয় হল তা হয়তো অামরা কোনদিনই জানতে পারবো না।

ছবি প্রতিনিধিত্বমূলক, নেট থেকে নেওয়া