করোনার টেস্টিং ল্যাবের উদ্বোধন না প্রচার!

0
26

সাতদিন ডেস্কঃ প্রয়োজনের তুলনায় কম করোনা টেস্ট হচ্ছে বলে যখন বলা হচ্ছে সেই সময় পশ্চিমবঙ্গ , উত্তরপ্রদেশ ও মহারাষ্ট্রে  ৩টি অত্যাধুনিক টেস্টিং সেন্টারের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। করোনা অাবহে এই উদ্বোধন হল ভার্চুযাল। প্রশ্ন উঠছে টেস্টিং ল্যাবের উদ্বোধনেও ভাষণ কি জরুরি ছিল?  এই কাজকি ঘটা করে প্রচার না করে করা যেত না!

অাসলে প্রচারের কোন সুযোগ অামাদের সরকার ছাড়তে নারাজ। তাই এদিনও টেস্টিং ল্যাবের উদ্বোধনের ভাষণে প্রধানমন্ত্রী দাবি করলেন ঠিক সময় ঠিক সিদ্ধান্ত কেন্দ্র নিয়েছিল বলে ভারতে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।প্রধানমন্ত্রী দাবি করেছেন সঠিক টেস্টিং, ও ট্রেসিং এর মাধ্যমে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। বাস্তবে কি অামরা যথেষ্ট টেস্ট এখনও করছি। এটা ঠিক টেস্টের সংখ্যা  বেশ কিছুটা বেড়েছে। এখন দিনে ৪ লাখের কিছু বেশি টেস্ট হচ্ছে। কিন্তু প্রতি ১০ লক্ষ জনসংখ্যার অনুপাতে এখনও দেশে টেস্টের সংখ্যা সাড়ে ১১ হাজারের মত। ব্রিটেনে এই সংখ্যা ২ লক্ষ ১৭ হাজার। চিলিতে ১০ লক্ষ জনসংখ্যার অনুপাতে এখন টেস্ট হয়েছে ৮০ হাজারের মত। এরাজ্যে টেস্টিংয়ের সংখ্যা জাতীয় গড়ের থেকে এখনও কম। ৯ হাজারের মত।এখন দেশের ৭০০টার মত জেলার অধিকাংশতেই কোন অাধুনিক ল্যাব নেই যেখানে করোনার অারটিপিসিঅার টেস্ট হতে পারে।

দেশে সরকারি মতে প্রতিদিন অাক্রান্তের সংখ্যা ৫০ হাজারের মত। বেসরকারি মতে এই সংখ্যাটা এর কয়েকগুন। অসংখ্য মানুষ টেস্ট করাতে চাইলেও পারছেন না। হয়রানির শিকার হচ্ছেন। কখনও কখনও টেস্টের রিপোর্ট পেতে ৪৮ ঘন্টারও বেশি সময় লেগে যাচ্ছে। ফলে    রোগীর মৃত্যু পর্যন্ত হচ্ছে।তাই অনেকে মনে করছেন করোনা অাবহে নিজেদের ঢাক নিজেরা না পিটিয়ে যদি জনসাধরণের কথা সরকারগুলো একটু বেশি ভাবতো তাহলে বোধহয় ভাল হত।