দেশে হার্ড ইমিউনিটি করোনার সমাধানের পথ নয় জানাল কেন্দ্র

0
53

সাতদিন ডেস্কঃসরকারি মতে দেশে প্রতিদিন  করোনা সংক্রমণের হার ৫০ হাজার ছাড়িয়েছে। এর থেকে কয়েকগুন বেশি মানুষ প্রতিদিন অাক্রান্ত হলেও পরীক্ষা করাতে পারছেন না। তা সত্ত্বেও দেশে হার্ড ইমিউনিটি সম্ভব নয় বলে মনে করে সরকার।৫০ থেকে ৭০ শতাংশ মানুষ করোনায় অাক্রান্ত হয়ে দেশে হার্ড ইমিউনিটি অানা সম্ভব নয বলে বৃহষ্পতিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য দফতরের অাধিকারিক মিডিয়াকে জানিয়েছেন। ভ্যাকসিনই একমাত্র পথ যেখান থেকে  হার্ড ইমিউনিটি পাওয়া সম্ভব।

থাইরোকেয়ারের করা অ্যান্টিবডি টেস্টের সার্ভেতে ইতিমধ্যেই কয়েক কোটি মানুষ করোনায় অাক্রান্ত  হয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন। মুম্বইয়ের বেশ কিছু বস্তি অঞ্চলে ৫০ শতাংশের মত মানুষ করোনায় অাক্রান্ত হয়ে সুস্থ হয়ে উঠেছেন। শুধু তাই নয় চারপাশে করোনা অাক্রান্তের সংখ্যা যেভাবে বাড়ছে তার সঙ্গে সরকারের পরিসংখ্যানের কোন মিল নেই। এর ওপর শুরু হয়েছে রেপিড টেস্ট। যেখানে ফলস নেগেটিভের সংখ্যা বেশি ।

যেভাবে ভ্যাকসিনের বাজার তৈরি করার জন্য প্রচার শুরু হয়েছে তাতে অনেকেরই এই নিয়ে সন্দেহ তৈরি হয়েছে। ইতিমধ্যে ২০ শতাংশ মার্কিন নাগরিক জানিয়েছেন তারা ভ্যাকসিন নেবেন না। দুনিয়াতে বোধ হয় এই প্রথম কোন রোগের ভ্যাকসিন এত তাড়াতাড়ি বাজারে অাসতে চলছে। অথচ ক্যানসারের ওষুধ অাজও অাবিষ্কার হল না। কারণ ওই রোগের ওষুধ অাবিষ্কার হলে তা দীর্ঘদিন ধরে করপোরেট সংস্থা কুক্ষিগত করে রাখতে অসুবিধা হতে পারে। তার পরিবর্তে ক্যানসার চিকিত্সার নামে ( লাইফ স্প্যান বৃদ্ধির নামে) ওষুধ বিক্রি করা ও তা হাতে ধরে রাখা বোধ হয় অনেক সহজ।