১৫ অগস্টের মধ্যে ভারতের প্রথম করোনা ভ্যাকসিন বাজারে অানার ঘোষণা কি সত্যি বাস্তবসম্মত?

0
105

সাতদিন ডেস্কঃ সরকারি হিসাবে  এখন দেশে প্রতিদিন ২০ হাজার মানুষ  নতুন করে করোনায় অাক্রান্ত হচ্ছে। এরই মধ্যে কেন্দ্রীয় সংস্থা ICMR ঘোষণা করে দিল দেশে তৈরি প্রথম করোনা প্রতিরোধক ভ্যাকসিন ১৫ অগস্টের মধ্যে জনগণের জন্য অানা হবে। যদিও এখনও পর্যন্ত এর ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরুর কথা চলছে মাত্র। বিশেষজ্ঞদের একাংশের মতে এই সময়সীমা অত্যন্ত অবাস্তব। বেসরকারি সংস্থা ভারত বায়ােটেকের সঙ্গে যৌথভাবে ICMR এর ন্যাশনল ইন্সটিটিউট অফ ভাইরোলজি পুনের তরফে তৈরি করা হচ্ছে এই ভ্যাকসিন। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের রিপোর্ট অনুযায়ী ICMRএর তরফে জানান হয়েছে ১৫ অগস্ট কোন ডেডলাইন নয়, তাদের টার্গেট ডেটমাত্র।

 করোনা অাতঙ্ককের অাবহে ওষুধ ও ভ্যাকসিন লবিগুলি অতিসক্রিয়তা লক্ষ করা যাচ্ছে। করোনার চিকিত্সায় কোন নির্দিষ্ট ওষুধ না থাকায় অন্য অসুখের চিকিত্সায় ব্যবহৃত বিভিন্ন ওষুধ করোনার চিকিত্সায় অনুমোদন অাদায় করে নিচ্ছে বিদেশি সংস্থাগুলি। কোনটার কোর্সের খরচ ৪ হাজার টাকা তো কোনটার ৩৫ হাজার টাকা।জেনেরিকের নামে এদেশেও  শুরু হয়েছে রোগীদের গলাকাটার সেই ব্যবসা। সরকার বা চিকিত্সক কেউ প্রশ্ন তুলছেন না অতিমারির সময় একটি পুরনো ওষুধের এত দাম নেওয়া হচ্ছে কেন?   এবার ভ্যাকসিনের পালা। তাই কি  এই চটজলদি ঘোষণা?  সংশয় রয়েই যাচ্ছে। কারণ ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরুর অাগে কী করে ভ্যাকসিন বাজারে অানার দিনক্ষণ ঘোষণা করল ICMR।

 অাগেও এদেশে ওষুধের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। এদেশে কিশোরীদের মধ্যে চালান ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল নিয়ম মেনে করা হয়নি বলে প্রশ্ন উঠছে  বিল গেটসের ফাইন্ডেশনের বিরুদ্ধেও। এবার করোনা ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল নিয়ে তড়িঘড়ি করার বিষয়টি সামনে এসেছে। সব থেকে উদ্বেগের বিষয়টি এক্ষেত্রে একটি বেসরকারি সংস্থার বানিজ্যের সঙ্গে জড়িত হয়ে গেল সরকারি সংস্থা ICMR এর নাম।