১৫ অগস্ট বাজারে করোনা ভ্যাকসিন অানার কথা বললেন কেন ICMR এর কর্তা

0
75

সাতদিন ডেস্কঃ ১৫ অগস্টের মধ্যে দেশের জনস্বাস্থ্যের জন্য করোনার ভ্যাকসিন অানার কথা ICMR এর কর্তা  বলরাম ভার্গব তাঁর চিঠিতে উল্লেখ করার পর তা ঘিরে দেশজুড়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। কমবেশি সব চিকিত্সক ও বিজ্ঞানীরাই বলছেন ওই সমযসীমার মধ্যে করোনার ভ্যাকসিন বাজারে অানা সম্ভব নয়। ১৫ অগস্ট তাে নয় ২০২১ এর অাগে তা সম্ভব নয়। কিন্তু তাহলে এমন কথা চিঠিতে উল্লেখ করলেন কেন icmr এর ডিরেক্টর জেনারেল? এর একটা সাফাই icmr এর তরফে দেওয়া হয়েছে তাতে বলা হয়েছে ভ্যাকসিন বাজারের অানার ক্ষেত্রে যাতে কোন লাল ফিতের ফাঁস না থাকে তার জন্যই ওই রকম উল্লেখ করা হয়েছে।

সত্যি কি বিষয়টি এমনই! নাকি icmr  তথা সরকারের তরফে অযথা তড়িঘড়ি করা হচ্ছে? স্বাধীনতা দিবসের দিন লাল কে্ল্লা থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি করোনা ভ্যাকসিনের কথা যাতে ঘোষণা করতে পারেন তাই কি চাপ তৈরি করা হচ্ছে? নাকি এর পিছনে রয়েছে ভ্যাকসিন লবির কোন কারসাজি? এরকম নানা জল্পনা এখন বাজারে।এর মধ্যে কোন একটা সত্যি হতেও পারে নাও হতে পারে। প্রশ্ন উঠছে সত্যি না হলে এরকম উদ্ভট চিঠি লিখলেন কেন অাইসিএমঅার এর কর্তা।

মনে রাখতে হবে ভ্যাকসিনের হিউম্যান ট্রায়াল একটি দীর্ঘ প্রক্রিয়া। ভ্যাকসিন অনুমোদনের ক্ষেত্রে তা গুরুত্বপূর্ণ। ভারতে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের এই পর্যায় যথেষ্ট শিথিল বলে মনে করেন অনেক সমাজকর্মীই। অাইসিএমঅার কি তাহলে এই প্রক্রিয়াটাকে অারো লঘু করে দিতে কোন বার্তা দিচ্ছে? নাকি মিডিয়াকে অাগামী ১ সপ্তাহের একটি খােরাক দিচ্ছে যার ফলে অন্য বিষয়গুলি কার্পেটের তলায় চাপা পড়ে যাবে। বিশেষ করে চিনের ক্ষেত্রে সরকারের অবস্থান নিয়ে  প্রশ্ন ওঠায় অস্বস্তি বাড়ছে সরকারের। তাছাড়া কয়লা বেসরকারি করণের প্রতিবাদে ৩দিনের ধর্মঘট সহ বেসরকারি সংস্থাকে দিয়ে প্যাসেঞ্জার ট্রেন চালানোর মত একাধিক ইস্যু ধামাচাপা পড়ে যাচ্ছে সহজেই। অনেকের কাছে শেষ যুক্তিটি কিছুটা হাল্কা লাগতে পারে তবে  ভারতের মিডিয়া ইতিহাসে এরকম ঘটনা বিরল নয়। কারণ যাই হোক ১৫ অগস্ট এর মধ্যে করোনা ভ্যাকসিনের কথা বললেই যে ভ্যাকসিন বাজারে অাসছে না তা স্পষ্ট।

 

 \