১ হাজার টাকায় বিক্রির লোভে ভ্যাকসিন সফল হওয়ার অাগেই ভারতে তৈরির সিদ্ধান্ত সিরামের!

0
738

সাতদিন ডেস্কঃ করোনা চিকিত্সার নামে ইতিমধ্যেই একাধিক পুরনো ওষুধকে করোনা চিকিত্সায় ব্যবহার করে বিরাট বাজার তৈরি করেছে বহুজাতিক কোম্পানিগুলি। চলছে ওষুধের কালোবাজিরও। এবার ভ্যাকসিনের পালা। অক্সফোর্ডের করোনা ভ্যাকসিনের মানবশরীরে ট্রায়ালের প্রাথমিক রিপোর্ট প্রকাশ হতে না হতেই এর তৈরির সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছে এদেশের সিরাম ইন্সটিটিউট। অক্সোফোর্ডের ভ্যাকসিন তৈরিতে তারাও অংশদীর বলে মিডিয়া জানাচ্ছে। মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী সিরাম ইন্সটিটিউটের ভ্যাকসিনের নাম রাখা হচ্ছে কোভিশিল্ড। প্রয়োজনীয লাইসেন্স পেলে অাগামী অগস্ট মাস থেকেই এদেশে ভ্যাকসিন তৈরি শুরু করবে তারা। এমনটাই জানাচ্ছে এনডিটিভি। ৩০ থেকে ৪০ কোটি ডোজ তৈরি করবে তারা।LIVE   MINT এর রিপোর্ট অনুযায়ী এদেশে প্রতিটি কোভিশ্লিড ভ্যাকসিনের ভ্যায়ালের দাম ১ হাজার টাকা করা হবে বলে ভেবেছে সিরাম।

প্রশ্ন উঠছে ভ্যাকসিনের ট্রায়াল এখন শেষ হয়নি। এদেশে মানবশরীরে তার পরীক্ষা শুরুর জন্য এখন অনুমোদন মেলেনি। তা সত্ত্বেও ভ্যাকসিন তৈরি শুরু করে দেওয়ার মানে কী? এনডিটিভির রিপোর্ট অনুযায়ী অক্সফোর্ডের তৈরি ভ্যাকসিন যদি  চূড়ান্ত পর্যায় সফল না হয়ে তাহলে ভারতে উত্পাদিত সমস্ত ভ্যাকসিনের ডোজ নষ্ট করে ফেলা হবে।  কে ভ্যাকসিনের বাজার অাগে দখল করবে সেই দৌড়ে এগিয়ে থাকতেই সিরামের এই কৌশল। অক্সফোর্ডের এই ভ্যাকসিন তৈরির অংশীদার হচ্ছে অ্যাস্ট্রাজেনিকা বলে একটি ওষুধ সংস্থা। তাদের দাবি ছিল অতিমারির সময় নাকি এই ভ্যাকসিন থেকে তারা কোন মুনাফা করবে না। এই তার নমুনা।