১ টাকার সুপ্রিম অবমাননা

0
11

সাতদিন ডেস্কঃ অাদালত অবমাননার দায়ে দোষী সাব্যস্ত প্রশান্ত ভূষণকে ১ টাকা জরিমানার সাজা শোনাল সুপ্রিম কোর্ট। এই জরিমানা ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে জমা দিতে হবে প্রশান্তভূষণকে। অনাদায়ে ৩ মাসের কারাদন্ড ও ৩বছর পর্যন্ত প্র্যাকটিস করতে পারবেন না প্রশান্ত ভূষণ।প্রশান্তভূষণ জানিয়েছেন তিনি ১ টাকা জরিমানা দেবেন।

এর  অাগে গত মঙ্গলবার শাস্তি দেওয়ার  সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি সুপ্রিম কোর্ট। দুঃখপ্রকাশ না করে  সর্বোচ্চ অাদালতের কাছে ১০০ পাতার যে জবাব প্রশান্ত ভূষণ জমা দেন তাতে মোটেই সন্তুষ্ট হতে পারেননি বিচারপতি অরুণ মিশ্র। প্রশান্তভূষণ জানিয়েছেন তিনি যদি দুঃখপ্রকাশ করেন তা হবে তাঁর বিবেকের অবমাননা। তবে সুপ্রিম কোর্টকে  অস্বস্তিতে ফেলেছেন অ্যাটর্নি জেনারেল কেকে ভেনুগোপালও। অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন  বহু বিচারপতিই  সর্বোচ্চ বিচার ব্যবস্থার দুর্নীতি নিয়ে মন্তব্য করেছেন।  তিনি বিচারকদের কাছে অার্জি জানিয়েছিলেন প্রশান্তভূষণকে কোন শাস্তি না দেওয়ার জন্য, শুধু সতর্ক করে ছেড়ে দেওয়া হোক বলে মত কেকে ভেনুগোপালের। অন্যদিকে প্রশান্তভূষণের অাইনজীবী রাজীব ধাওয়ান বলেন জোর করে দুঃখপ্রকাশ করানো যায় না।

 অাদালত অবমাননায় দোষী সাব্যস্ত করে  প্রশান্তভূষণকে তাঁর বক্তব্যের জন্য অনুশোচনা বা দুঃখপ্রকাশ করার জন্য ভাবার সময় দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। তবে প্রশান্তভূষণ জানিয়েছিলেন এই ২-৩দিনে তাঁর চিন্তার কোন পরিবর্তন হবে বলে তিনি মনে করেন না বরং এতে অাদালতের সময়ই নষ্ট হবে। প্রশান্তভূষণ মনে করেন  গণতান্ত্রিক মূল্যবোধের রক্ষার জন্য প্রতিষ্ঠানের  সমালোচনা জরুরি। তিনি শাস্তির জন্য প্রস্তুত। কোন মহানুভবতা তিনি সর্বোচ্চ অাদালতের কাছে প্রত্যশা করেন না।

সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি এসএ বোবদে ও প্রাক্তন ৪ প্রধান বিচারপতির   উদ্দেশে করা ২টি পৃথক টুইটে মন্তব্য করার জেরে অাদালত অবমাননার মামলায় প্রশান্ত ভূষণকে দোষী সাব্যস্ত করে সুপ্রিমকোর্টর ৩ সদ্স্যের বেঞ্চ। বেঞ্চের  ৩বিচারপতি হলেন অরুণ মিশ্র,  বিঅার গাভাই ও কৃষ্ণ মুরারি। গত ১৪ অগস্ট এই প্রশান্তভূষণকে অাদালত অবমাননার দায়ে দোষী সাব্যস্ত করে সর্বোচ্চ অাদালত।

গত ২৯ জুন এক টুইটে প্রশান্ত ভূষণ লিখেছিলেন প্রধান বিচারপতি মাস্ক ও হেলমেট না পরেই , বিজেপি নেতার ৫০ লক্ষ টাকার মোটর বাইক নাগপুরে রাজভবনের সামনে চেপেছেন । যখন কি না তিনি নিজে সু্প্রিম কোর্টকে লকডাউনে রেখে নাগরিকদের বিচারের অধিকার থেকে বঞ্চিত করছেন।

২৭জুন অন্য একটি টুইটে প্রশান্ত লেখেন যখন অাগামী দিনে ঐতিহাসিকরা গত ৬ বছরকে দেখবেন তারা লক্ষ করবেন জরুরি অবস্থা ছাড়াই দেশে গণতন্ত্রকে ধ্বংস করা হয়েছে। এই ক্ষেত্রে তাঁরা বিশেষ করে লক্ষ করবেন সুপ্রিম কোর্টের ভূমিকাকে, অারো বিশেষভাবে প্রাক্তন ৪ প্রধান বিচারপতির ভূমিকাকে।

সু্প্রিম কোর্টে জমা দেওয়া হলফনামায় প্রশান্ত ভূষণ জানিয়েছেন  তাঁর করা টুইটে সঠিক। এতে অাদালতের কোন অবমাননা হয় বলে তিনি মনে করেন না। তবে মোটর সাইকেলটি দাঁড়িয়েছিল তাই হেলমেট না পরার বিষয়টি উল্লেখ করায় তিনি দু্ঃখিত।

বেশ কয়েক বছর ধরে সুপ্রিম কোর্টের একাধিক রায় যেভাবে সরকারের পক্ষে গেছে তা নিয়ে নানা মহলে প্রশ্ন উঠছে।  দেশের অাইন ব্যবস্থার ওপর অনেকেই অাস্থা হারাচ্ছেন বলে  মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশ। সমালোচনা হচ্ছে প্রশান্তভূষণকে যেভাবে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে তা নিয়েও।  এই অবস্থায় প্রশান্তভূষণকে দোষী সাব্যস্ত করলেও সাজা শোনাতে ইতস্ত করছিলেন বিচারপতিরা । অবশেষে সাজা শুনিয়ে নিজেদের সেই অস্বস্তিতে থেকে মুক্তি দিলেন বিচারপতিরা। অন্তত এমনটাই মত অাইনজীবীদের অনেকের।