কেন্দ্রের নির্দেশেই ডঃপার্থ সারথি রায়কেকে স্বৈরাচারি পরোয়ানা পাঠিয়েছে NIA-অরুণাভ ঘোষ

0
167

সাতদিন ডেস্কঃ-কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি বা এনআইএ কে কেন্দ্রের ভীতি প্রদর্শনের হাতিয়ার বলে কটাক্ষ করলেন কংগ্রেস নেতা ও বিশিষ্ট আইনজীবী অরুণাভ ঘোষ।তাঁর কথায়,”ভীমা কোরেগাঁও মামলায় এই সংস্থা যেভাবে দেশের বড় বড় বুদ্ধিজীবীদের গ্রেপ্তার করে রেখেছে কোন প্রমাণ না থাকা সত্ত্বেও জামিন অগ্রাহ্য করা হচ্ছে বার বার তাতে বিচার বিভাগের নিরপেক্ষতা নিয়ে যেমন সন্দেহ হয় একই সঙ্গে এনআইএ যে পুরোপুরি রোন্দ্রীয় সরকারের হয়ে ভীতি প্রদর্শনের কাজ হাতে নিয়েছে গোটা দেশজুড়ো তাও বোঝা যাচ্ছে।ইউএপিএ আইনটা তো ভয়াবহ  গণতন্ত্র বিরোধী এক আইন একই সঙ্গে এটা দেশ বিরোধীও কারণ আমাদের দেশ গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে,আস্থা রাখে।”বিজেপি গত কয়েক বছর যাবত্ এদেশের গণতন্ত্রের যাবতীয় কাঠামোগুলোকে ভেঙে দিচ্ছে বলে অভিযোগ তুলে অরুণাভ ঘোষ বলেন এখনই নাগরিক সমাজের পক্ষ থেকে প্রতিরোধ না গড়া গেলে এদেশের যাবতীয় ঐতিহ্য নষ্ট হয়ে যাবে।এ রাজ্যের এক বিশিষ্ট বিজ্ঞান গবেষক পার্থসারথি রায়কে যে ভেবে আগামী ১০ তারিখ মুম্বইতে এনআইএ এর দপ্তরে হাজিরা দিয়ে ভীমা কোরেগাঁও মামলা সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদের জবাব দিতে বলা হয়েছে তাতে বিশ্ময় প্রকাশ করে অরুণাভ ঘোষ বলেন,’এ তো চরম স্বৈরাচারি পরোয়ানা,যে মানুষটা সেই ঘটনা সম্পর্কে বিন্দু-বিসর্গ জানেন না তাকে বলা হচ্ছে সে সম্পর্কে তথ্য দিতে হবে,না দিলেই দোষীদের আড়াল করার অভিযোগে গ্রেপ্তার-এ তো আজব কান্ডকারখানা।নিকৃষ্ট সরকার,নিকৃষ্ট প্রধানমন্ত্রী ও নিকৃষ্ট তাদের তদন্তকারী সংস্থা।”

অরুণাভ ঘোষ বলেন,গত দুবছর ধরে ভীমা কোরেগাঁও মামলায় যাদের ধরা হয়েছে তাদের কারোর বিরুদ্ধেই কোন তথ্য প্রমাণ দিতে পারেনি এনআইএ এখনও পর্যন্ত তাহলে কেন জামিন হবে না তাদের?এই মামলায় যাদের ধরা হয়েছে তাদের সামাজিক পরিচয় অন্যন্ত উঁচু,করোর পক্ষে বিশ্বাস করা শক্ত যে এই সব মানুষজনেরা বোমা-বন্দুক নিয়ে কাউকে খুন করার চক্রান্ত করতে পারেন।আসলে গোটাটাই সাজানো বলে মনে করেন অরুণাভ ঘোষ।যেভাবে এ রাজ্যের তরুণ বিজ্ঞান গবেষক পার্থ সারথি রায়কে এনআইএ টার্গেট করেছে তাতে তারা যে কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশের দাস মাত্র সে বিষয়ে সন্দেহের কোন অবকাশ নেই বলেই মনে করছেন বিশিষ্ট এই আইনজীবী।তাঁর মতে বিচার বিভাগ,মিডিয়া ও কেন্দ্রীয় সংস্থাগুলির যে অবনমন এই বিজেপি সরকারের আমলে হয়েছে তা আগে কখনওই হয় নি।

 সাতদিন ডটইনের পক্ষ থেকে পার্থসারথি রায়ের সঙ্গেও যোগাযোগ করা হয়েছিল তিনি জানিয়েছেন তিনি আইনজ্ঞদের পরামর্শ নিচ্ছেন।মুষ্টিমেয় যে কয়েকটি মিডিয়া তাঁর বিষয়টা সামনে নিয়ে আসার প্রয়াস করেছে তাদের ধন্যবাদ জানিয়ে এই তরুণ বিজ্ঞানি জানান তিনি গণতান্ত্রিক অধিকার রক্ষার লড়াই চালিয়ে যাবেন।পার্থসারথি রায় এই মূহুর্তে রাজ্যের কোভিড টেস্টের জন্য নির্ধারিত সমস্ত বেসরকারি ল্যাবের প্রধানের দায়িত্ব সামলাচ্ছেন।এই প্রসঙ্গ উল্লেখ করে তিনি জানান,কঠিন সময়ে মানুষের জন্য অনেক ঝুঁকি নিয়ে কাজ করতে হচ্ছে তার মধ্যে এই কেন্দ্রীয় পরোয়ানা কাজের সময় কেড়ে নিচ্ছে,সেটা বাড়তি চিন্তার বিষয়।তিনি যখন রাজ্যের এই অতিমারি মোকাবিলার এক গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব সামলাচ্ছেন তখন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা তাঁকে যে হয়রানি করছে তা নিয়ে রাজ্য সরকারের নীরবতা বা উদাসীনতা  নিয়ে কোন প্রতিক্রিয়া দিতে না চাইলেও বিষয়টা যে তাঁকে ব্যথিত করেছে তা তাঁর কথার ইঙ্গিতে পরিষ্কার।পার্থসারথি রায় জানাচ্ছেন সোমবার তিনি তাঁর পক্ষ থেকে একটি প্রেস বিবৃতি প্রকাশ করবেন তাতে তাকে যেভাবে কেন্দ্রীয় সরকার তাদের জনবিরোধী কাজের প্রতিবাদ করায় তাদের মত মানুষজনকে টার্গেট করছে সে বিষয় উল্লেখ থাকবে।