রাশিয়ার করোনা ভ্যাকিসনে অাশার অালো, কেন অাশা নেই ক্যানসার চিকিত্সায়?

0
53

সাতদিন ডেস্কঃ রাশিয়ার করোনার প্রতিষেধক ভ্যাকসিন নিয়ে নানা সমালোচনা হলেও ল্যানসেট পত্রিকায় বলা হয়েছে স্পুটনিক v ভ্যাকসিন শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরিতে সক্ষম হয়েছে। সেরকম কোন বিরূপ পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও দেখা যায়নি। তবে খুব অল্প সংখ্যক মানুষের মধ্যে এই ট্রায়াল হয়েছে বলে জানিয়েছে ল্যানসেট।

দুনিয়াজুড়ে একাধিক করোনা প্রতিষেধক ভ্যাকসিন তৈরি প্রায় চূড়ান্ত পর্যায়। ইতিমধ্যেই মার্কিন প্রেসেডিন্ট ডোনাল্ট ট্রাম্পের প্রশাসন বলেছে সেদেশে নভেম্বর নাগাদ ভ্যাকসিন প্রয়োগের জন্য সবাইকে তৈরি থাকতে। সময়টা ঠিক মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের অাগে। অক্সফার্ড ভ্যাকসিন নামে পরিচিত ভ্যাকসিনটি তৈরি হচ্ছে এদেশে সিরাম ইন্সটিটিউটে। ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে  ভ্যাকসিন  চূড়ান্ত সফল হওয়ার অাগেই তা তৈরি এর অাগে হয়েছে কিনা জানা নেই। তবে অতিমারির এই সময় ভ্যাকসিন নিয়ে যা হচ্ছে তাতে অাশার সঙ্গে সংশয়ও তৈরি হচ্ছে অনেকের মনে।

ক্যানসার এখন ঘরে ঘরে। অথচ তার ওষুধ তৈরিতে এত তত্পরতা লক্ষ করা যায় না। অনেকেই বলবেন ক্যানসার তো অার সংক্রামক নয়। নাই বা হল । তাতে কি রোগের ভয়াবহতা কম হয়। অাসল প্রশ্নটা বোধ হয় লুকিয়ে অাছে মুনাফার সঙ্গে। ক্যানসারের ওষুধ বেরলো তা বোধহয় বেশি দিন অত্যধিক দামে বিক্রি করা যাবে না। দাবি উঠবে সরকারি পরিষেবা বিনামূল্যে অথবা কম দামে দেওয়ার জন্য। অার তা হলে ক্যানসারের নামে যে কোটি কোটি টাকার ব্যবসা চলে তা অার চলবে না। যেভাবে করোনার ওষুধ না থাকায় নানা পুরনো ওষুধ বিপুল দামে বাজারে অানা হচ্ছে। অাসল কথা হলে মানুষের স্বাস্থ্য ও চিকিত্সার অধিকার কি বাজারের নিয়মে নির্ধারিত হতে পারে?