রাশিয়ার কোভিড ভ্যাকসিনের ১০ কোটি ডোজের জন্য চুক্তি ভারতের ওষুধ সংস্থার

0
49

সাতদিন ডেস্কঃ রাশিয়ার করোনার ভ্যাকসিন স্পুটনিক  V নিয়ে সন্ধেহ প্রকাশ করেছে গোটা দুনিয়া। এবার সেই ভ্যাকসিনের ভারতে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল ও ১০ কোটি ভ্যাকসিন ডোজের জন্য রাশিয়ার সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হল রেড্ডিজ ল্যাবোরেটরি। তবে এরজন্য ভারতের ড্রাগ কন্ট্রোলরে প্রয়োজনীয় অনুমোদনের পরই চুক্তি বাস্তবায়িত হবে বলে জানাচ্ছে মিন্ট ওয়েবসাইট। কিছুদিন অাগে ল্যানসেট পত্রিকায় প্রকাশিত এক প্রবন্ধ থেকে জানা গিয়েছিল রাশিয়ার স্পুটনিকV র প্রাথমিক ট্রায়ালের ফলাফল অাশাব্যঞ্জক।

অন্যদিকে  অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনিকার করোনার প্রতিষেধকের এদেশে উত্পাদনকারী সিরাম ইন্সটিটিউটকে ফের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের অনুমতি দিল ভারতের ড্রাগ কন্ট্রোলার। এর অাগে নোটিস পাঠিয়ে  ট্রায়াল বন্ধ রাখতে বলা হয়েছিল।ব্রিটেনের এক স্বেচ্ছাসেবকের শরীরের  ভ্যাকসিন প্রয়োগে পার্শ্বপ্রতিক্রায়র দেখা দেওয়ায়  ভ্যাকসিনের ট্রায়াল স্থগিত রেখেছিল অ্যাস্ট্রাজেনিকা। একই কারণে সিরামকে ট্রায়াল বন্ধ রাখতে বলেছিল DGCI।

এদেশে ইতিমধ্যেই অক্সফোর্ড- অ্যাসট্রাজেনিকার কোরানার প্রতিষেধক ভ্যাকসিনের উত্পাদন শুরু করে দিয়েছে সিরাম ইনস্টিটিউট। মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী লক্ষ লক্ষ ভায়েল ইতিমধ্যেই উত্পাদনও হয়ে গেছে। অথচ চূড়ান্ত পর্যায়ের ট্রায়ালে মানুষের শরীরে সুরক্ষার ক্ষেত্রে বিরুপ প্রতিক্রিয়া দেখা দেওয়ায় অাপাতত ট্রায়াল স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে অ্যাস্ট্রাজেনিকা। কিন্তু প্রশ্ন উঠছে যদি ভ্যাকসিনের ফর্মুলেসনে কোন পরিবর্তন অাগামী দিনে ঘটে তাহলে কি সিরামের তৈরি হয়ে যাওয়ায় ভ্যাকসিন গুলি নষ্ট করে ফেলা হবে? এর গ্যারান্টিকে দেবে? যে দেশে স্পিরিট দিয়ে ওষুধের এক্সপায়ারি ডেট ওঠিয়ে বিক্রি করা হয় সেখানে কোটি কোটি টাকার তৈরি ভ্যাকসিন কি সত্যি জলে ফেলে দেবে সিরাম?

 বিশেষজ্ঞদের একাংশ অাগে থেকেই বলছিলেন করোনার প্রতিষেধক ভ্যাকসিন বাজারে অানার বিষয়টি নিয়ে অত্যন্ত তাড়াহুড়ো করা হচ্ছে। এতে হিতে বিপরীত হতে পারে। ভ্যাকসিনের কার্যকারিতার মাত্রার থেকে বেশি নিশ্চিত হওয়া জরুরি এর প্রয়োগে মানব শরীরে  পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া কোন ক্ষতি হবে কিনা তা নিশ্চিত করা। তাছাড়া যে হারে সংক্রমণ বাড়ছে তাতে ভ্যাকসিন ছাড়াই হয়তো অনেক দেশ হার্ড ইমিউনিটিতে পৌঁছে যাবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞদের অনেকেই।