শিবসেনাকে চাপে রাখতেই কি ICICI ব্যাঙ্কের প্রাক্তন CEO র স্বামীকে গ্রেফতার ইডির?

0
25

সাতদিন ডেস্কঃ ICICI ব্যাঙ্কের প্রাক্তন  এমডি  চন্দা কোছারের স্বামী ব্যবসায়ী দীপক কোছারকে সোমবার গ্রেফতার করল ইডি। এনডিটিভির রিপোর্ট অনুযায়ী ভিডিওকনকে যে ১৮৭৫ কোটি টাকা ঋণ দেয় ICICI ব্যাঙ্ক তার একটা অংশ ঘুরপথে দীপকের কোম্পানিতে ঢোকে বলে অভিযোগ। 

 এর অাগে অবৈধভাবে ভিডিওকনকে ঋণ পাইয়ে দেওয়ার জেরে ICICI ব্যাঙ্কের এমডি তথা সিইও পদ থেকে ইস্তফা দিতে হয় চন্দা কোছার।  অভিযেোগের  তদন্ত শুরু করে সিবিঅাই। প্রাথমিক ভাবে তদন্তের কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছে ICICI ব্যাঙ্কের MD তথা CEO চন্দা কোছারের স্বামী  দীপক কোছারেরর সঙ্গে ভিডিওকনের মালিক ভেনুগোপাল দুতের আতাঁতের অভিযোগটি। অভিযোগ চন্দার স্বামীকে ৬৪ কোটি টাকার একটি কোম্পানি জলের দরে ঘুর পথে হাত বদল করেছে ভিডিওকন। আর তা ঘটে icici ব্যাঙ্ক থেকে  ঋণ পাওয়ার ৬ মাস পর। ফলে স্বাভাবিকভাবেই অভিযোগের অাঙ্গুল ওঠে  চন্দার কোছারের দিকে।চন্দা বাধ্য হন ইস্তফা দিতে।

PNB এর সাড়ে ১৩ হাজার কোটি টাকার প্রতারণার পর যখন অনেকেই সরকারি ব্যাঙ্কের বেসরকারিকরণের ওকালতি করতে শুরু করেছেন, ঠিক তখনও ভিডিওকনকে বেসরকারি ব্যাঙ্ক ICICI ব্যাঙ্কের  ৩২৫০ কোটি টাকার ঋণ খেলাপি নিয়ে প্রাথমকি তদন্ত শুরু করে CBI। এখন অবশ্য ঋণের অঙ্ক বলা হচ্ছে ১৮৭৫ কোটি টাকা। প্রাথমিক ভাবে তদন্তের কেন্দ্রবিন্দুতে  ICICI ব্যাঙ্কের MD তথা CEO চন্দা কোছারের স্বামী  দীপক কোছারেরর সঙ্গে ভিডিওকনের মালিক ভেনুগোপাল দুতের আতাঁতের অভিযোগটি। অভিযোগ চন্দার স্বামীকে ৬৪ কোটি টাকার একটি কোম্পানি জলের দরে ঘুর পথে হাত বদল করেছে ভিডিওকন। আর তা ঘটে icici ব্যাঙ্ক থেকে ৩২৫০ কোটি টাকা ঋণ পাওয়ার ৬ মাস পর। তবে ব্যাঙ্কের যুক্তি হল ভিডিওকনকে ঋণ দিয়েছে ২০ ব্যাঙ্কের একটি কনসোর্সিয়াম। ঋণের অঙ্ক প্রায় ৪০ হাজার কোটি টাকা। সেই ঋণের ১০ শতাংশের কম ভাগ রয়েছে ICICI ব্যাঙ্কের। ফলে আলাদা করে ভিডিওকনকে সুবিধা দেওয়ার  প্রশ্নই উঠছে না। ভেনুগোপালের ভাই রাজকুমার দুত ভিডিওকন গ্রুপের অন্যতম অংশীদার তথা রাজ্যসভায় শিবসেনার সদস্য।

এদেশে করপোরেট ঋণ খেলাপি এখন অামবাত। তবে খাসবাত হল এর জেরে কোন ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা। যদিও দীপক কোছার সেরকম কোন নামিদামি নাম নয়। তাছাড়া ঋণখেলাপির অভিযোগ ভিডিওকনের বিরুদ্ধে দীপকের বিরুদ্ধে নয়। দীপকের বিরুদ্ধে অভিযোগ কার্যত কাটমানির। তাই রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশের মতে অাসলে শিবসেনাকে চাপে রাখতেই কেন্দ্রের এই ইডি দাওয়াই। তানাহলে হাজার হাজার কোটি টাকা ঋণের টাকা মেরে বুক ফুলিয়ে ঘুরে বেরান বা দেশ থেকে বিদেশে চলে যাওয়াার পরও তেমন কোন হেলদোল সরকারের দেখা যায় না।