করোনা ভ্যানিশ! ৪০ শতাংশ অধিক যাত্রী বহনের মেট্রোর সিদ্ধান্তে যুক্তি কী?

0
25

সাতদিন  ডেস্কঃ  করোনা অাবহে কলকাতা মেট্রো শুরু হয়েছে সম্প্রতি। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কারণ দেখিয়ে নোয়াপাড়া – কবি সুভাষ লাইনে নানা নিয়ম কানুন চালু করেছে মেট্রো কর্তৃপক্ষ। যার মধ্যে ই পাস ও স্মার্ট কার্ড বাধ্যতামূল  করা হয়েছে। অথচ হঠাত্ করে মেট্রো জানাচ্ছে অাগামী ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে প্রতিটি মেট্রো রেকে অারো ৪০ শতাংশ অধিক যাত্রী তারা বহন করবে।

 করোনা অাবহে  মেট্রো চালু হওয়ার সময় ৪০০ জন করে যাত্রী পরিবহণ করত কলকাতা মেট্রো। ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে তা ৫৬০ জন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে মেট্রো। অনেকেই বলতে পারেন মেট্রোতে ফাঁকা থাকছে বাড়তি লোক নিতে বাধা কোথায়। তাহলে এত দিন  তা নেওয়া হল না কেন? হঠাত্ কী এমন ঘটলো তাতে করে প্রতিটি ট্রেনে  ১৬০জন করে অতিরিক্ত যাত্রী বহনের সিদ্ধান্ত নিল মেট্রো।

অাসলে অামাদের দেশে সব কাজই এরকম। পরিকল্পনাহীন পরিকল্পনা। কেনই বা টোকেন বন্ধ করা হল? কেনই বা ইপাস চালু করা হল? কেন শহরে মাত্র সন্ধে সাড়ে ৭টায় শেষ মেট্রো চলবে? কেন রাত  ১০ টায় নয়? এর কোন তথ্য ভিত্তিক ব্যাখ্যা নেই।অাসলে কোথাও যাত্রী বা জনসাধরণের কাছে কোন জবাবদিহির ব্যাপার নেই। মর্জি হল তাই করা হল। এখন মনে হচ্ছে ৪০০ এর  জায়গায় ৫৬০ জন যাত্রী বহন করলেও সংক্রমণ বাড়বে না। তাহলে বাড়বে না।  যেভাবে হঠাত্ করে সারা দেশে ৪ ঘন্টার লকডাউন ঘোষণা করা হয় সেইভাবে এদেশে সব কিছু হয়। মেট্রো তার ব্যতিক্রম নয়।

ছবি কলরাতা মেট্রোর সৌজন্যে