মাও তকমা দিয়ে রাঁচি থেকে ৮৩ বছরের এক বৃদ্ধকে গ্রেফতার করে কী বার্তা দিচ্ছে কেন্দ্র?

0
38

সাতদিন ডেস্কঃ ভিমা করেগাও মামলা মাও তকমা দিয়ে ৮৩ বছরের স্টান স্বামীকে বৃহষ্পতিবার  রাঁচি থেকে  NIAএর গ্রেফতারের তীব্র প্রতিবাদ করলেন প্রশান্ত ভূষণ, রামগুহ সহ বহু বুদ্ধিজীবী। গ্রেফতার অাগে একাধিকবার স্টানকে জেরা করে এনঅাইএ। ৬ অক্টোবর জারি করা এক ভিডিওতে স্টান জানিয়েছিলেন এনঅাইএ তাঁকে জেরার নামে মু্ম্বই নিয়ে যেতে চাইছে। তাঁর বয়স ও কোভিড পরিস্থিতিতে তিনি তা যেতে অস্বীকার করেছেন। তাঁক কম্পিউটার থেকে পাওয়া গেছে বলে নানা ভুয়ো তথ্য তাঁর নামে চালাতে চাইছে এনঅাইএ।

২০১৮ সালের এলগার পরিষদের সভা ঘিরে অশান্তির জেরে হিন্দু সংগঠনের নেতাদের ছেড়ে দেওয়া হলেও একের পর এক বাম বুদ্ধিজীবী মানবাধিকার কর্মী, অধ্যাপক, কবি সহ মোট ১৬জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এবার গ্রেফতার করা হল ৮৩ বছরের এক বৃদ্ধ পাদ্রি যিনি অাজীবন অাদিবাসীদের জন্য কাজ করেছেন ।

ফিরে দেখা 

 ২০১৮ সালের জুন মাসে দেশজুড়ে মানবাধিকার কর্মীদের বাড়িতে পুলিসের হানা। ৬ জুন নাগপুর ও দিল্লি থেকে  সুধীর ধাওয়ালে, সুরেন্দ্র গাডলিং, মহেশ রাউত, সোমা সেন ও রোনা উইলসনকে গ্রেফতার করে পুণের পুলিস। মুম্বইয়ের অরুণ ফেরেরা ও ভেরনন গনসালভেসকেও গ্রেফতার করেছে পুণের পুলিস।  এর পর  গ্রেফতার করা হয় ছত্তিশড়ের ট্রেড ইউনিয়ন কর্মী, অাইনজীবী সুধা ভরদ্বাজকে। সুধাকে গ্রেফতার করা হয় ফরিদাবাদ থেকে। ভারভারা রাওকে পুলিস গ্রেফতার করেছে হায়দরাবাদ থেকে। এর পর গ্রেফতার করা হয় অানন্দ তেলতুমবদেকে। গ্রেফতার হন বিশিষ্ট মানবাধিকার কর্মী গৌতম নাভলেখাও।  পুলিসের অভিযোগ ভিমা করেগাঁও হিংসার সঙ্গে জড়িত এরা। সঙ্গে মাও তকমা।

৩১ ডিসেম্বর ২০১৭ সালে মারাঠা পেশওয়াদের বিরুদ্ধে দলিতদের বিজয় ২০০ বছর পূর্তিতে ভিমা করেগাঁতে এক অনুষ্ঠানের অায়োজনকে কেন্দ্র করে হিংসা ছড়ায়। সেই তদন্তে নেমে পুণে পুলিস একটি চিঠি অাবিষ্কার করে। পুলিসের দাবি যেখানে বলা হয় নরেন্দ্র মোদিকে হত্যার পরিকল্পনা করছে মাওবাদীরা। এর পর একে একে গ্রেফতার করা হয় মানবাধিকার কর্মী ও বুদ্ধিজীবীদের। কিছুদিন অাগে দিল্লি থেকে গ্রেফতার করা হয় অধ্যাপক হানি বাবুকে।  মহারাষ্ট্রে গ্রেফতার করা হয় সাগর , রমেশ ও জ্যোতি নামে ৩ সাংস্কৃতিক কর্মীকেও। এবার গ্রেফতার করা হল ৮৩ বছরের এক বৃদ্ধকে ।