৬২ হাজার কোটি টাকা জমা না দিলে ফের জেলে পাঠান হোক সুব্রত রায়কে , ঘুম থেকে জেগে সুপ্রিম কোর্টে অার্জি সেবির

0
17

 সাতদিন ডেস্কঃ অবিলম্বে ৬২ হাজার ৬০০ কোটি টাকা  জমা না দিলে সাহারার সুব্রত রায়ের প্যারোল বাতিল করা হোক। এই অার্জি নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হল শেয়ার বাজার ও বিনিয়োগকারীদের  নিয়ন্ত্রক সংস্থা সিকিউরিটি অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ বোর্ড বা সেবি। ২০১২ সালে সেবির হিসাব অনুযায়ী সাহারার জমা দেওয়ার কথা ছিল  ২৫ হাজার ৭০০ কোটি টাকা। কয়েক হাজার কোটি টাকা জমা দিলেও অাদালত বা  সেবির কারো নির্দেশকেই খুব একটা পাত্তা দেয়নি সুব্রত রায়।

 নিয়েম ভেঙে অামানতকারীদের থেকে হাজার হাজার কোটি টাকা তোলে সাহারা। সেবির হিসাব মত টাকা জমা না দেওয়া ২০১৪ সালের মার্চে  জেলে যেতে হয় সাহারার মালিক সুব্রত রায়কে। মায়ের শেষকৃত্যের অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার নাম করে ২০১৬ সালের মে মাসে প্যারোলে জেলের বাইরে আসে সুব্রত রায়। কয়েক সপ্তাহের সেই প্যারোল শেষ হয়নি অাজও। তারপর শুধুই সুপ্রিম কোর্ট হুঙ্কার দিয়েছে অার জামিনের মেয়াদ বৃদ্ধি করে চলেছে। বহাল তবিয়তে জেলের বাইরেই রয়েছে সাহারার সুব্রত রায়।

     আইন- আদালত -পুলিস বড়লোকদের কিছু করতে পারে না। এই কথা লোকে এমনি এমনি বলে না। আমানতকারীদের হাজার হাজার কোটি টাকা পাওনা না মেটালেও, সুপ্রিম কোর্টে জামিনে প্রতিশ্রতি মত বকেয়া টাকা সেবিকে   জমা দেযনি সুব্রত রায়। বরং জেল থেকে বেরিয়ে ফের কোটি কোটি টাকা খরচ করে নিজের প্রচার শুরু করেছে সুব্রত রায় ও সাহারা। সুপ্রিম কোর্টে প্রতিবারই হুঙ্কার দেয় যে এবার টাকা জমা না দিলে ফের জেলে ফিরতে হবে সুব্রত রায়কে। ওই অবধি। সাহারা টাকা জমাও দেয় না,জেলেও যায় না।  এবার হঠাত্ এত বছর পর সেবি কেন ফের অাদালতে গেল সেটাই প্রশ্ন? অনেকে বলছেন সামনেই ভোট চিটফান্ড ইস্যু সব দিক থেকেই মুখোরচক। পার্টি ফান্ডের ক্ষেত্রে বেশ স্বাস্থ্যকরও বটে।